রাত পেরোলেই, ২৯ অক্টোবর ভাইফোঁটা! জেনে নিন ফোঁটা দেওয়ার সময় ও রীতি

Bhai Dooj: ভাইফোঁটার বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে, একে 'যম দ্বিতীয়া' এবং 'ভ্রাতৃ দ্বিতীয়া'ও বলা হয়ে থাকে, দীপাবলির দু'দিন পরে পালন করা হয় এই পবিত্র উৎসব

রাত পেরোলেই, ২৯ অক্টোবর ভাইফোঁটা! জেনে নিন ফোঁটা দেওয়ার সময় ও রীতি

Bhai Dooj 2019: ভাইফোঁটা ভাই এবং বোনেদের মধ্যে ভালবাসার এক প্রতীকী উৎসব

হাইলাইটস

  • ভাই এবং বোনের মধ্যে ভালবাসার উৎসব হল ভাইফোঁটা
  • এই দিনে, বোনেরা তাঁদের ভাইয়ের কপালে ফোঁটা দেয়
  • ভাইফোঁটার দিনে ভাই এবং বোনের একসঙ্গে বসে খাওয়া উচিত
নয়া দিল্লি:

আগামিকাল (মঙ্গলবার) ভাইফোঁটা বা ভ্রাতৃদ্বিতীয়া। ভাইফোঁটা আসলে ভাই এবং বোনের মধ্যে অপরিসীম ভালবাসা এবং উৎসর্গের প্রতীক। এই দিনে বিবাহিত মহিলারা তাঁদের ভাইদের বাড়িতে নিমন্ত্রণ করেন এবং কপালে ফোঁটা দিয়ে তাঁদের দীর্ঘায়ু কামনা করেন, পরে থাকে খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থাও। ওই দিন ভাই-বোনরা একসঙ্গে বসে খাবার খান। বিশ্বাস করা হয় যে ভাইফোঁটার দিন ভাই যদি বোনের পাশে বসে একসঙ্গে খাবার খান, তবে এটি অত্যন্ত শুভ ও মঙ্গলজনক হিসাবে গণ্য হয়। দীপাবলির দু'দিন পরে হওয়া এই উৎসবটি যম দ্বিতীয়া নামেও পরিচিত। এই দিনটিতে যম (মৃত্যুর দেবতা) দেবতার উপাসনা করার নিয়মও রয়েছে। রাখিবন্ধনের পর ভাইফোঁটা এমন আরেকটি উৎসব যেখানে ভাই-বোন খুবই উৎসাহের সঙ্গে দিনটি পালন করে। রাখিবন্ধনের দিন যেখানে ভাইরা তাঁদের বোনকে চিরকাল রক্ষা করার প্রতিশ্রুতি দেয়, তেমনি ভাইফোঁটা (Bhai Dooj) উপলক্ষে, বোন তাঁর ভাইয়ের দীর্ঘজীবনের জন্য প্রার্থনা করেন।

ভাইফোঁটা কবে?

হিন্দু বর্ষপঞ্জী অনুসারে, ভাইফোঁটা কার্তিক মাসের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয় দিনে পালিত হয়। ভ্রাতৃদ্বিতীয় পালন করা হয় দীপাবলির দু'দিন পর। এবার ভাইফোঁটা বা যম দ্বিতীয়া পড়েছে আগামিকাল অর্থাৎ ২৯ অক্টোবর।

ভাইফোঁটার তারিখ ও শুভ সময় 
ভাইফোঁটা / যম দ্বিতীয়ার তারিখ:
২৯ অক্টোবর ২০১৯ 
দ্বিতীয়া শুরু: ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ এর সকাল ৬টা বেজে ১৩ মিনিট থেকে
দ্বিতীয়া শেষ: ৩০ অক্টোবর, ২০১৯ ভোর ৩টে বেজে ৪৮ মিনিট পর্যন্ত
ভাইফোঁটার অপরাহ্নকালীন সময়: দুপুর ১টা বেজে ১১মিনিট থেকে ৩টে বেজে ২৩ মিনিট পর্যন্ত
মোট সময়কাল: ০২ ঘণ্টা ১২ মিনিট

ভাইফোঁটার গুরুত্ব:

হিন্দু ধর্মে ভাইফোঁটার বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। এই উৎসবকে 'যম দ্বিতীয়া' এবং 'ভ্রাতৃ দ্বিতীয়া'ও বলা হয়ে থাকে।রাখিবন্ধনের পর ভাইফোঁটা এমন আরেকটি উৎসব যেখানে ভাই-বোন খুবই উৎসাহের সঙ্গে দিনটি পালন করে। রাখিবন্ধনের দিন যেখানে ভাইরা তাঁদের বোনকে চিরকাল রক্ষা করার প্রতিশ্রুতি দেয়, তেমনি ভাইফোঁটা (Bhai Dooj) উপলক্ষে, বোন তাঁর ভাইয়ের দীর্ঘজীবনের জন্য প্রার্থনা করেন। অনেক জায়গায়, এই দিনে বোনেরা তাঁদের ভাইদের গায়ে তেল মাখিয়ে এবং তাঁদেরকে স্নান করতে বলেন। এই সময় যমুনা নদীতে স্নান করা অত্যন্ত শুভ বলে বিবেচিত হয়। যদি যমুনায় স্নান করা সম্ভব না হয় তবে ভাইয়ের উচিত ওই দিন বোনের বাড়িতেই স্নান করা । যদি বোনের বিয়ে হয়ে গিয়ে থাকে তবে তাঁর উচিত ভাইকে নিমন্ত্রণ করা এবং বাড়িতে ডেকে খাওয়ানো।

ভাইফোঁটায় আমাদের কী করা উচিত?
-
ভাইফোঁটায় স্নানের পরে পরিষ্কার কাপড় পরতে হয়। এই দিনে, বোনেরা নতুন পোশাক পরেন।
- ভাইয়ের দীর্ঘজীবন কামনা করে ফোঁটা দেওয়ার আগে পর্যন্ত বোনেদের উপবাস করতে হয় এবং পরে ফোঁটা দিয়ে ভাইয়ের কল্যাণ কামনা করতে হয়।
- ভাইকেও উপবাস করতে হয়।
- ভাইফোঁটা দেওয়া হয়ে গেলে ভাই-বোনরা একসঙ্গে খাবার খান।

More News