পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধে আহত ভারতী ঘোষ সহ ৭০ বিজেপি কর্মী

তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে গুণ্ডামির অভিযোগ তুলে এবং দলীয় কর্মীদের উপর ক্রমাগত হামলা ও পুলিশি অত্যাচারের প্রতিবাদ জানিয়ে ঘেরাও অভিযান করে বিজেপি

পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধে আহত ভারতী ঘোষ সহ ৭০ বিজেপি কর্মী

পশ্চিম মেদিনীপুরে পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধে আহত ভারতী ঘোষ সহ ৭০ বিজেপি কর্মী

কলকাতা:

একটি রাজনৈতিক কর্মসূচি চলাকালীন পশ্চিম মেদিনীপুরে (West Midnapore) বিজেপি (BJP) কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের খণ্ডযুদ্ধ হয়। এক বিজেপি নেতা জানিয়েছেন সোমবার, এই সংঘর্ষের ঘটনায় আহত হন বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষ (Bharati Ghosh) সহ কমপক্ষে ৭০ জন বিজেপি । রাজ্যে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে গুণ্ডামির অভিযোগ তুলে এবং বিজেপি কর্মীদের উপর ক্রমাগত হামলা ও পুলিশি অত্যাচারের অভিযোগে গেরুয়া দলের কর্মীরা সোমবার পুলিশ সুপারের কার্যালয় ঘেরাও অভিযান করেন। জানা গিয়েছে,  গেরুয়া দলের আন্দোলনকারীরা ব্যারিকেড ভেঙে এগোতে গেলে পুলিশের সঙ্গে তাঁদের সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি সামলাতে পুলিশ বিজেপি কর্মীদের উপর লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ উঠেছে।  পাশাপাশি উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসেরও প্রয়োগ করতে হয় পুলিশকে।

ভাটপাড়া হাসপাতালের বিল্ডিংয়ে ঢুকে ভাঙচুর, লন্ডভন্ড সিভিক এজেন্সি অফিসও

বিজেপি (BJP) অভিযোগ করেছে যে তাঁরা "শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক" আন্দোলন করতে গেলে তা বানচাল করার ব্যাপারে "অতি-সক্রিয়" ছিল পুলিশ । গেরুয়া দলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে পুলিশের মারে তাঁদের দলের কমপক্ষে পাঁচজন কর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন।

"আমরা শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে আমাদের বিক্ষোভ করছিলাম। তখনই পুলিশের দিক থেকে কিছু দুষ্কৃতী আমাদের কর্মীদের লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়ে মারে এবং দেশি বোমাও ছোঁড়ে। আমাদের কর্মীদের নির্মমভাবে মারধর করা হয়। আমাদের কমপক্ষে ৭০ জন দলীয় কর্মী আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ৩০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে," সংবাদসংস্থা আইএএনএসকে জানান বিজেপির (BJP)  পশ্চিম মেদিনীপুর (West Midnapore) জেলা সভাপতি সমিত কুমার দাস।

ভাটপাড়ায় যৌথ শান্তি মিছিল কংগ্রেস-সিপিআইএমের

জানা গিয়েছে, ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনের বিজেপি প্রার্থী এবং ঝাড়গ্রামের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ (Bharati Ghosh), যিনি বিজেপির (BJP) ওই বিক্ষোভে নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন, তিনিও আহত হয়েছেন ।  পুলিশের ছোঁড়া কাঁদানে গ্যাসে তীব্র শ্বাসকষ্টেও ভুগছেন তিনি।

বিজেপির (BJP) তরফ থেকে আরও দাবি করা হয় যে দেশি বোমার আঘাতে সরিফুল নামে এক বিজেপি কর্মীর ডান চোখ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এবং পাঁচ বিজেপি কর্মীর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

"আমরা দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সাথে যোগাযোগ করেছি এবং তাঁদের সঙ্গে আলোচনা করার পরে ভবিষ্যতের পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করব। সোমবারের ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে দলের তরফে। এছাড়াও বিজেপির রাজ্য (West Bengal) সভাপতি দিলীপ ঘোষ দিল্লি থেকে ফিরে আসার পর আমরা এই ঘটনার প্রতিবাদে একটি শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ সমাবেশ করব", জানান বিজেপির (BJP) পশ্চিম মেদিনীপুর (West Midnapore) জেলা সভাপতি শমিত কুমার দাস।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)