রাজ্যে মদের দোকান খোলায় অনুমতি রাজ্য সরকারের, মাস্ক ছাড়া মদ বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা

জানানো হয়েছে, মাস্ক না পরে এলে কাউকে মদ বিক্রি করা হবে না। পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার কথাও বলা হয়েছে। দু’জনের মধ্যে অন্তত ৬ ফুট দূরত্ব রাখতে হবে।

রাজ্যে মদের দোকান খোলায় অনুমতি রাজ্য সরকারের, মাস্ক ছাড়া মদ বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা

রাজ্যে মদের দোকান খোলায় অনুমতি দেওয়া হল সোমবার। (প্রতীকী)

সোমবার থেকে রাজ্যে (West Bengal) মদের দোকান (Liquor Shops) খোলার অনুমতি দিল রাজ্য সরকার। গ্রিন, অরেঞ্জ জোন ছাড়া রেড জোনেও মদের দোকান খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে কনটেনমেন্ট জোন বা অতি সংক্রামক এলাকায় দোকান খোলার অনুমতি মেলেনি। সরকার প্রকাশিত গাইডলাইনে বলা হয়েছে ‘অফ' ক্যাটিগরির দোকানগুলিই খোলা যাবে যারা আইএমএফএল, বিদেশি ও দেশি মদ বিক্রি করে। ‘অন' ক্যাটিগরির দোকান এখন খোলা যাবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে গাইডলাইনে। শপিং কমপ্লেক্সের মধ্যে অবস্থিত মদের দোকান খোলার অনুমতিও দেয়নি রাজ্য সরকার। বন্ধ থাকবে বিয়ার পাব, ক্লাব, রেস্তোরাঁ-ও-বার কিংবা হোটেল-রেস্তোরাঁ-ও-বারগুলিও।

প্রাথমিক ভাবে বলা হয়েছিল দোকানগুলি সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দোকান খোলা থাকবে। পরে বলা হয় দোকান খোলার সময় দুপুর ৩টে থেকে সন্ধ্যা ৬টা।

মদের দোকানের সামনে লাইন কালীঘাটে, সরাতে মৃদু লাঠিচার্জ পুলিশের

আরও জানানো হয়েছে, মাস্ক না পরে এলে কাউকে মদ বিক্রি করা হবে না। পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার বিষয়েও কড়াকড়ি করার কথা বলা হয়েছে। জানানো হয়েছে, দু'জনের মধ্যে অন্তত ৬ ফুট দূরত্ব রাখতে হবে।

গাইডলাইনে আরও বলা হয়েছে, এক সময়ে একটা দোকানে পাঁচজনের বেশি থাকতে পারবেন না। এদিন কলকাতার বিভিন্ন এলাকায় মদের দোকানের সামনে লাইন চোখে পড়ে।

গ্রিন ও অরেঞ্জ জোনে বিধিনিষেধে ছাড় দেওয়া নিয়ে ভাবনাচিন্তা করছে রাজ্য সরকার

এদিন কালীঘাট এলাকায় মদের দোকানের সামনে ভিড় সরাতে মৃদু লাঠিচার্জ করতে হল পুলিশকে। লাইনে থাকা সকলের মুখেই মাস্ক দেখা গেলেও সামাজিক দূরত্বের কোনও চিহ্ন ছিল না। এরপর পুলিশের তাড়া খেয়ে দৌড়তে গিয়ে সরু গলির মধ্যে কারও কারও পদপিষ্ট হওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়ে যায়।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)