মসজিদের জন্য জমি না নিলে কি আদালত অবমাননা হবে? আইনি আলোচনায় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড

অযোধ্যা মামলার রায়ে সুপ্রিম কোর্ট মন্দির নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছে। পাশাপাশি মসজিদ নির্মাণের জন্য ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছে শীর্ষ আদালত।

মসজিদের জন্য জমি না নিলে কি আদালত অবমাননা হবে? আইনি আলোচনায় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড

মসজিদ নির্মাণের জন্য ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। প্রতীকী ছবি

লখনউ:

সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া রায় অনুসারে, অযোধ্যায় (Ayodhya) মসজিদ নির্মাণের জন্য পাঁচ একর জমি দেওয়া হবে মুসলিমদের। ওই জমি নেওয়া বা না নেওয়া নিয়ে আইনি পরামর্শ নিচ্ছে উত্তরপ্রদেশের সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড (Sunni Waqf Board)। আগামী রবিবার লখনউয়ে ‘অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড'-এর বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্তকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হবে বলে তারা জা‌নিয়েছে। বোর্ডের সভাপতি জুফার ফারুকি শুক্রবার বলেন যে, অযোধ্যায় জমি নেবে কি না সে বিষয়ে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের সিদ্ধান্তকে বিশেষ গুরুত্ব দেবে। তিনি বলেন, ‘অল ইন্ডিয়া পার্সোনাল মুসলিম ল বোর্ড' অযোধ্যা মামলায় কোনও পক্ষ হিসেবে উপস্থিত না থাকলেও নিঃসন্দেহে এটি দেশের মুসলমানদের কাছে সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য প্রতিষ্ঠান। সুতরাং তার সিদ্ধান্তকে গুরুত্ব দেওয়া উচিত।

ফারুকি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে মসজিদের জন্য প্রাপ্ত জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড যদি না নেয়, তাহলে তাতে আদা‌লতকে অবমাননা প্রদর্শন করা হবে কি না তা বুঝতেই আইনি পরামর্শ নেওয়া শুরু করেছে সংগঠন।

মহারাষ্ট্রে সরকার গড়া নিয়ে তিন দলের বৈঠক, রবিবার সনিয়া-শরদ আলোচনা

তিনি এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, জমি নেওয়ার বিষয়ে ভিন্ন ভিন্ন মত রয়েছে। তবে জমিতে গঠনমূলক কিছু করে দুনিয়াকে কোনও বার্তা দেওয়ার পক্ষে মতামত কম লোকেরই রয়েছে। আপাতত ঠিক হয়েছে আগামী ২৬ নভেম্বর বোর্ডের সভাতেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তার আগে রবিবার ‘অল ইন্ডিয়া পার্সোনাল মুসলিম ল বোর্ড'-এর সভাতেও এনিয়ে আলোচনা হবে।

JNU-তে স্বামী বিবেকানন্দের মূর্তি ভাঙল ছাত্ররা, FIR দায়ের প্রশাসনে

এদিকে বাবরি মসজিদ অ্যাকশন কমিটির আহ্বায়ক জাফরিয়ার জিলানির মতে, ‘অল ইন্ডিয়া পার্সোনাল মুসলিম ল বোর্ড' অযোধ্যা মামলায় মুসলিম পক্ষের পাশে ছিল, তাই মসজিদ নির্মাণের জন্য জমি নেওয়া বা না নেওয়ার ব্যাপারে তাদের মতামতকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। কিন্তু যদি জমি নেওয়া না নেওয়া নিয়ে ভিন্নমতো পোষণ করে দুই সংগঠন? সেক্ষেত্রে কী হবে সে কথা জানচে চাওয়া হলে জিলানি বলেন, সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড অযোধ্যা মামলার একমাত্র পক্ষ ছিল না। তারা মুসলিমদের প্রতিনিধি ছিল বলে মনে করা হয়েছিল। ফলে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড একা একা কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারে না।

এদিকে মুসলমানদের বৃহত্তম সামাজিক সংগঠন ‘জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ'-এর সভাপতি মওলানা আরশাদ মদনি বলেছেন যে বিকল্প জমিট মুসলমানদের নেওয়া উচিত নয়।

অযোধ্যা মামলার রায়ে সুপ্রিম কোর্ট মন্দির নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছে। পাশাপাশি মসজিদ নির্মাণের জন্য ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছে শীর্ষ আদালত।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)

হাইলাইটস

  • মসজিদ নির্মাণের জন্য ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছে শীর্ষ আদালত
  • সেই জমি নেওয়া না নেওয়া সংশয়ে মুসলিম ওয়াকফ বোর্ড
  • এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি
More News