অযোধ্যা মামলার রায়দানের জন্য সমস্ত স্কুল বন্ধ উত্তরপ্রদেশে

কোনওরকমে গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, এবং শান্তি ও সম্প্রীতিরক্ষার আবেদন জানিয়েছেন বলে সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

সমস্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে কেন্দ্র, তাদের স্পর্শকাতর এলাকায় অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা মোতায়েন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে


নয়াদিল্লি: 

অযোধ্যার মন্দির-মসজিদ রায়দানকে (Ayodhya Temple-Mosque Title Suit Case) কেন্দ্র করে উত্তরপ্রদেশের সমস্ত স্কুল, কলেজ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে সোমবার পর্যন্ত। শনিবার অযোধ্যা মামলার রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট। কোনওরকমে গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, এবং শান্তি ও সম্প্রীতিরক্ষার আবেদন জানিয়েছেন বলে সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।উত্তরপ্রদেশ সরকারের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা এবং মানুষের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বন্ধপরিকর রাজ্য প্রশাসন। আইশৃঙ্খলা ভাঙার চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে”। শনিবার সকাল ১০.৩০ এ রায় রায়দান করবে সুপ্রিম কোর্ট।

অযোধ্যা মামলায় রায়দান ঘিরে উত্তরপ্রদেশে কড়া নিরাপত্তা

৪০ দিন শুনানির পর, ১৬ অক্টোবর, রায়দান স্থগিত করে দেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।এর আগে, এদিনই, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে উত্তরপ্রদেশের শীর্ষ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানবিচারপতি। সাংহবিধানিক বেঞ্চে প্রধানবিচারপতি ছাড়াও রয়েছেন, বিচারপতি এসএ বোবদে, বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, বিচারপতি অশোক ভূষণ এবং বিচারপতি আব্দুল নাজির।

অযোধ্যার ২.৭৭ একর জায়গা নিয়ে বিবাদ, দক্ষিণণপন্থীদের বিশ্বাস ওই জায়গায় রাম মন্দির ছিল। ১৯৯২-এ, মোঘল সম্রাট বাবরের তৈরি করা বলে কথিত, ১৬ শতকের একটি মসজিদ ভেঙে দেয় ডানপন্থীরা। সেই ঘটনায় দেশজুড়ে হিংসায় ২,০০০ মানুষের মৃত্যু হয়।

২০১০ সালের রায়ে, তিনজনের মধ্যে জায়গাটি ভাগ করে দেয় এলাহাবাদ হাইকোর্ট, একটি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড, একটি নির্মোহি আখরা এবং অপরটি রাম লালা। রায়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন ১৪ জন।

চলতি বছরের অগস্টে সিদ্ধান্তে ব্যর্থ হয় মধ্যস্থতাকারীরা, তারপরেই সুপ্রিম কোর্টে দৈনিক শুনানি শুরু হয়। তারপর, রায়দান স্থগিত রাখে আদালত।

অযোধ্যার ঐতিহাসিক মন্দির-মসজিদ মামলায় রায়দান শনিবার

রায়দানকে কেন্দ্র করে উত্তরপ্রদেশে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছে।আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখতে রাজ্যজুড়ে ১২,০০০ পুলিশকর্মী মোতায়েন করা হয়েছে।

অযোধ্যায় একাধিক স্তরীয় নিরাপত্তা বলয় থাকছে, সঙ্গে ড্রোনের মাধ্যমে চলবে নজরদারি। ১৬,০০০ স্বেচ্ছাসেবকের সঙ্গে পরিস্থিতির দিকে নজর রাখতে একটি মোবাইল অ্যাপ চালু করেছে অযোধ্যা পুলিশ।

রাজ্যের অতিরিক্ত ডাইরেক্টর জেনারেল অফ পুলিশ পিভি রামশাস্ত্রীকে উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, “অযোধ্যায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়েছে, এবং রাজ্যের সমস্ত স্পর্শকাতর জেলায় ভাল ব্যবস্থা করা হয়েছে। সিএপিএফ এবং পিএসি কোম্পানির জওয়ান পর্যাপ্ত পরিমাণে মোতায়েন করা হয়েছে”।

আজকের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি দেখতে ক্লিক করুন: 

বৃহস্পতিবার সমস্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে কেন্দ্র, তাদের স্পর্শকাতর এলাকায় অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা মোতায়েন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আসন্ন রায়দানকে কেন্দ্র করে উত্তরপ্রদেশে ৪,০০০ আধা সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................