"আমরা ওয়াক আউট করব": অযোধ্যা শুনানির পরিপ্রেক্ষিতে বললেন প্রধান বিচারপতি

Ayodhya case: এই মামলায় মুসলিম আবেদনকারীদের আইনজীবী রাজীব ধাওয়ান রাম জন্মস্থানের চিহ্নিতকারী মানচিত্র ছিঁড়ে ফেলেন

আজ সন্ধে ৫ টায় শেষ অযোধ্যার দৈনিক শুনানি, জানান Supreme Court-এর প্রধান বিচারপতি

নয়া দিল্লি:

সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) অযোধ্যা মামলার (Ayodhya case) দৈনিক শুনানির ৪০ তম দিনে নাটকীয় মোড়। ভরা আদালতে বিচারকদের সামনেই রাম জন্মভূমির চিহ্নিতকারী (Ram Temple) মানচিত্রটি ছিঁড়ে ফেললেন মুসলিম পক্ষের আইনজাবী।  আইনজীবী রাজীব ধাওয়ান বলেন রাম জন্মস্থানের চিহ্নিতকারী মানচিত্র ছিঁড়ে ফেলার আগে "এটি ছিঁড়ে ফেলার জন্যেও কি আমার অনুমতি লাগবে?" জানা গেছে, বুধবার শুনানি চলাকালীন উত্তর প্রদেশের মন্দির শহরে ওই বিতর্কিত জমির মালিকানা দাবি করার পক্ষে সওয়াল জবাব করার সময় অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার আইনজীবী বিকাশ সিং কুনাল কিশোর প্রকাশিত একটি মানচিত্রকে এর প্রমাণ হিসাবে আদালতে জমা দেওয়ার চেষ্টা করেন। ঠিক সেই সময়ই মুসলিম পক্ষের আইনজীবী সেটিকে নিয়ে ছিঁড়ে ফেলেন। "সুপ্রিম কোর্টের এই বইয়ের উপর নির্ভর করা উচিত নয়", সেটিকে ছিঁড়ে ফেলার কথা বলে জানান ধাওয়ান।

মুসলিম পক্ষের আইনজীবীর এই কাজেই প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান আইনজীবী। "আদালতের সমস্ত নিয়ম নীতি নষ্ট হয়ে গেছে, আমরা বেরিয়ে যাব", বলেন ভারতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

"অনেক হয়েছে", আজ সন্ধে ৫ টায় শেষ অযোধ্যার দৈনিক শুনানি, জানালেন প্রধান বিচারপতি

এর আগে প্রধান বিচারপতি বলেন, রাজনৈতিকভাবে সংবেদনশীল রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ জমির বিরোধের প্রতিদিন শুনানি বুধবার সন্ধে ৫টাতেই শেষ হবে। "আমরা সন্ধে ৫ টা নাগাদ উঠব। যথেষ্ট হয়েছে", বলেন প্রধান বিচারপতি গগৈ। তার আগে এক আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টকে অযোধ্যা মামলায় সওয়াল জবাবের জন্যে আরও সময় চান। তার পরিপ্রেক্ষিতেই ওই মন্তব্য করেন দেশের প্রধান বিচারপতি।

অযোধ্যা নিয়ে সুপ্রিম রায়ের সময় এগিয়ে আসায় অযোধ্যা জুড়ে ১৪৪ ধারা জারি

অযোধ্যা মধ্যস্থতা প্যানেল আজ (বুধবার) মধ্যস্থতার দ্বিতীয় দফায় তাঁর প্রতিবেদন দাখিল করতে পারে।

আগামী ১৭ নভেম্বর দেশের প্রধান বিচারপতি পদ থেকে অবসর নেবেন রঞ্জন গগৈ। আশা করা হচ্ছে তার আগেই অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা করবে সুপ্রিম কোর্ট।

দেখুন এই ভিডিওটি:

More News