চা শ্রমিকদের গণপিটুনিতে ৭৩ বছরের প্রবীণ চিকিৎসকের মৃত্যুতে ২১ জন গ্রেফতার

Assam's Jorhat mob killing: দেবেন দত্তকে হত্যার প্রতিবাদে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন মঙ্গলবার জরুরি সেবা প্রত্যাহারসহ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। জোড়াহাটের এই চা বাগানকে নিরাপত্তার কারণে আপাতত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

Jorhat Killing: আসামের চা বাগানের শ্রমিকদের গণপিটুনিতে মারা যান ডাঃ দেবেন দত্ত


গুয়াহাটি: 

হাইলাইটস

  1. শনিবার গণপিটুনিতে মারা যান ডাঃ দেবেন দত্ত
  2. IMA এই ঘটনার প্রতিবাদে ধর্মঘটে সামিল, ব্যহত জরুরি পরিষেবা
  3. বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আসামের ওই চা বাগান

শনিবার আসামের জোড়হাট জেলায় (Jorhat district) চা বাগানের শ্রমিকদের হাতে আক্রান্ত হওয়া ৭৩ বছর বয়সী একজন চিকিৎসকের মৃত্যুতে ২১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। প্রায় ২৫০ মানুষের হাতে নিগৃহীত হয়ে সরকারি হাসপাতালে মারা যান প্রবীণ চিকিৎসক ডাঃ দেবেন দত্ত। প্রতিবাদে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন মঙ্গলবার জরুরি সেবা প্রত্যাহারসহ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। মূল শহর গুয়াহাটি থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে আসামের জোড়াহাটের এই চা বাগানকে নিরাপত্তার কারণে আপাতত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। উর্ধ্বতন পুলিশ অফিসার রোশনী অপরঞ্জি কোরাতি বলেন, “চা বাগানের চিকিত্সক, ৭৩ বছর বয়সী ডাঃ দেবেন দত্তকে (Dr Deben Dutta) এস্টেটের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সোমরা মাঝি নামে এক শ্রমিকের মৃত্যুর পরে ব্যাপক মারধর করা হয়।" হাসপাতালে অনুপস্থিত থাকার কারণে এবং অস্থায়ী ওই শ্রমিকের মৃত্যুর জন্য তাঁর অনুপস্থিতিকেই দোষারোপ করে টেওক টি এস্টেটের (Teok Tea Estate) কর্মীরা ডাঃ ​​দেবেন দত্ত নামের ওই প্রবীণ আবাসিক চিকিৎসককে মারধর করে।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে যে জোড়াহাট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ভিতরে চিকিৎসককে মারধর করা হচ্ছে। সোমরা মাঝি (Somra Majhi) নামে ৩৩ বছর বয়সী শ্রমিককে তার আত্মীয় স্বজনরা এস্টেটের অভ্যন্তরে হাসপাতালে নিয়ে যান। শনিবার দুপুরের দিকে তাঁর শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। 

চা বাগানের শ্রমিকদের গণপিটুনিতে মৃত্যু ৭৩ বছর বয়সী প্রবীণ চিকিৎসকের

তবে সেই সময় ডাঃ দেবেন দত্ত হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন না এবং ফার্মাসিস্টও ছুটিতে ছিলেন। কর্তব্যরত নার্স স্যালাইনের ব্যবস্থা করলেও ওই শ্রমিক মারা যান। ডাঃ দেবেন দত্ত বেলা সাড়ে তিনটের দিকে এলে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা তাকে মারধর করে এবং হাসপাতালের একটি কক্ষে প্রবীণ চিকিৎসককে আটকে রেখে দেয়। ডাঃ দেবেন দত্ত অনেক আগেই অবসর নিয়েছিলেন এবং ওই চা বাগানে এক্সটেনশনে কাজ করছিলেন। জোড়হাটের বরিষ্ঠতম চিকিৎসক হিসাবেই মানুষের কাছে পরিচিত ছিলেন তিনি। উর্ধ্বতন পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ প্রবীণ চিকিৎসকে উদ্ধার করে। ম্যাজিস্ট্রেটের তদন্তের আদেশ দেওয়া হয়েছে এই ঘটনায়।

Assam NRC List: প্রায় সাড়ে তিন কোটি মানুষের নাগরিকপঞ্জী তৈরির নেপথ্যে কোন আইএএস আধিকারিক?

টেওক চা বাগানটি অ্যমালগেটেট প্লান্টেশনস প্রাইভেট লিমিটেডের ( Amalgamated Plantations Pvt. Ltd.) দায়িত্বে থাকা চা বাগান। এই সংস্থাটি টাটা টি লিমিটেডের (Tata Tea Limited) তৈরি একটি এন্টারপ্রাইজ। জোড়হাট শহর থেকে প্রায় ২২ কিমি দূরে অবস্থিত এই বাগান। পশ্চিমবঙ্গ চিকিৎসক ফোরাম (West Bengal Doctors' Forum) এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। তাঁদের কথায়, "ডাঃ দত্ত অবসরের পরেও চা বাগানের শ্রমিকদের জন্য উপদেষ্টা চিকিৎসক হিসেবে কাজ করে গিয়েছেন। পুলিশের সামনে এইভাবে তাঁকে হত্যা করেই সেই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলেন তাঁরা!" 

চিকিৎসকদের ফোরাম জানিয়েছে যে, ডাঃ দত্ত এতদিন ধরে যে মানুষদের সেবা করে গেলেন, তাঁকে পিটিয়ে শেষ করে ফেলতে একবার বিবেকেও বাধল না এই শ্রমিকদের! চিকিৎসকরা বলছেন, “একজন আহত ব্যক্তিকে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য আধা-সামরিক বাহিনীকে নামতে হল...এই হল ভারতে জনতার শক্তি। ভারতে কৃতজ্ঞতা এবং প্রাকৃতিক ন্যায়বিচারের প্রকৃতি হল এই! আমাদের গর্বের ভারত! চিকিত্সকদের সুরক্ষার এই তো অবস্থা! ভারতে অন্তত ডাক্তারদের আর মর্যাদা নেই।”



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................