‘‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে’’, প্রধানমন্ত্রীর অসম টুইটের উত্তরে কংগ্রেস

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইংরেজি ও অসমিয়া দু’ভাষাতেই ওই টুইট করেন। প্রধানমন্ত্রীর টুইটের পর কংগ্রেস তাঁকে ট্রোল করে।

‘‘ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে’’, প্রধানমন্ত্রীর অসম টুইটের উত্তরে কংগ্রেস

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইংরেজি ও অসমিয়া দু’ভাষাতেই ওই টুইটটি করেন।

নয়াদিল্লি:

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi) টুইট করেছিলেন নাগরিকত্ব বিলের (CAB) প্রতিবাদে অসম জুড়ে (Assam) শুরু হওয়া উত্তপ্ত বিক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে। বৃহস্পতিবার সকালে টুইট করে অসমের জনগণের উদ্দেশে তিনি জানান, এই বিল নিয়ে তাঁদের উদ্বেগের কোনও কারণ নেই। কেউ তাঁদের অধিকার কেড়ে নিতে পারবে না। প্রধানমন্ত্রীর টুইটের পর কংগ্রেস তাঁকে ট্রোল করল। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইংরেজি ও অসমিয়া দু'ভাষাতেই ওই টুইট করেন। তিনি লেখেন, ‘‘আমি আমার অসমের ভাই ও বোনদের নিস্চিত করতে চাই যে তাঁদের নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনও কারণ নেই। আমি তাঁদের নিশ্চিত করতে চাই, কেউ আপনাদের অধিকার, পরিচয় ও সুন্দর সংস্কৃতিকে কেড়ে নেবে না। এটা আরও সমৃদ্ধশালী হবে ও বাড়বে।''

তিনি আরও জানান, ‘‘কেন্দ্রীয় সরকার এবং আমি সম্পূর্ণ দায়বদ্ধ সাংবিধান‌িক ভাবে অসমের জনগণের রাজনৈতিক, ভাষাগত, সাংস্কৃতিক ও ভূমি অধিকার রক্ষা করতে, যেমন ৬ নম্বর ধারায় বলা আছে।''

কংগ্রেস এই টুইটের উত্তরে লেখে, ‘‘অসমে আমাদের ভাই ও বোনেরা আপনার আশ্বাসদায়ক মেসেজ পড়তে পারছেন না। মোজিদি, আপনি যদি ভুলে গিয়ে না থাকেন, ওখানকার ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।''

গুয়াহাটির বহু অংশে প্রতিবাদ সামাল দিতে ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হয়েছে।

কংগ্রেস সিএবির তীব্র বিরোধিতা করেছে। এই বিলে ২০১৫-র আগে ভারতে আসা পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের অমুসল‌িম ন‌াগরিকদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

১৯৮৫ সালের অসম চুক্তিতে বলা হয়েছিল ১৯৭১ সালের মার্চের পর বাংলাদেশ থেকে আগত অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করে নির্বাসিত করা হবে। অসমের জনগণ আশঙ্কা করছেন, এই বিলের ফলে সেখানে বাংলাদেশ থেকে আগত অনুপ্রবেশকারীদের ঢল নামবে।

More News