রোগিনীর মৃত্যুতে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ, চিকিৎসকের জরিমানা ৫ লক্ষ

এক রোগিনীর মৃত্যুতে দোষী সাব্যস্ত করা হল সংশ্লিষ্ট চিকিৎসককে। চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে তাঁকে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

রোগিনীর মৃত্যুতে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ, চিকিৎসকের জরিমানা ৫ লক্ষ

জরিমানার টাকা মৃতার স্বামীকে দু’মাসের মধেয দিয়ে দিতে হবে।

গুয়াহাটি:

এক রোগিনীর মৃত্যুতে দোষী সাব্যস্ত করা হল সংশ্লিষ্ট চিকিৎসককে। চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে তাঁকে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অসমে (Assam) এই ঘটনা ঘটেছে। অসম মানবাধিকার কমিশনের বেঞ্চ বুধবার অভিযুক্ত চিকিৎসক ঘনশ্যাম ঠাকুরিয়াকে (Assam Doctor) দোষী সাব্যস্ত করে। ওই বেঞ্চের নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন‌ বিচারক টি ভাইফেই। আম্বুরি আর্বান হেলথ সেন্টারে ২০১৭ সালে জনৈক পিঙ্কি দাসের মৃত্যু হয়। কমিশন জানিয়েছে, জরিমানার টাকা পিঙ্কি দাসের স্বামীকে দু'মাসের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে ওই চিকিৎসককে। কমিশন প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে এও বলা হয়েছে, যেহেতু ওই অভিযুক্ত চিকিৎসক সরকারি হাসপাতালে রয়েছেন, তাই রাজ্য সরকারই তাঁর পক্ষে জরিমানার টাকা দিয়ে দিতে পারে। পরে ওই চিকিৎসকের বেতন থেকে মাসিক কিস্তিতে পুরো টাকাটা কেটে নেওয়া হতে পারে।

২০১৭ সালের অক্টোবরে মৃতার স্বামী অভিযোগ দায়ের করেন। জানা যায়, পিঙ্কি দাস পিঠে ব্যথা, সামান্য জ্বর ও তলপেটে ব্যথা ও জ্বাল ভাব নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন ওই হেলথ সেন্টারে।

নারদ মামলায় প্রথম গ্রেফতার আইপিএস এসএমএইচ মির্জা

বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, প্রাথমিক পরীক্ষা করে দেখা যায়, রোগিনীর রক্তচাপ  ও হৃৎস্পন্দন একেবারে স্বাভাবিক রয়েছে। কিন্তু কিডনির আশপাশে যন্ত্রণা ও তলপেটে ব্যথা দেখে মনে করা হচ্ছিল তাঁর মূত্রনালির সংক্রমণ হয়েছিল। এরপর অভিযুক্ত চিকিৎসক ইঞ্জেকশন ও ড্রিপ দিলে দেখা যায় রোগিনীর অস্বস্তি আরও বেড়ে গিয়েছে। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলা হলেও তিনি আর কোনও চিকিৎসা হওয়ার আগেই মারা যান।

কমিশনের নির্দেশে তদন্ত শুরু হলে অচিরেই দেখা যায়, চিকিৎসায় গাফিলতির কোনও প্রমাণ মিলছে না। কমিশন বিস্মিত হচ্ছিল এটা ভেবে যে, কেবল পিঠে ব্যথা নিয়ে চিকিৎসকের কাছে আসার পরে চিকিৎসা শুরু হতেই কী করে পিঙ্কি দাস মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন।

গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছ থেকে স্বাধীন মতামত নিলে দেখা যায়, সেক্ষেত্রেও চিকিৎসায় গাফিলতির কোনও প্রমাণ মিলছে না।

তৎসত্ত্বেও অভিযুক্ত চিকিৎসকের সঠিক ব্যখ্যা না মেলায় কমিশনের পক্ষে চিকিৎসক ঘনশ্যাম ঠাকুরিয়াকে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করা ছাড়া আর উপায় ছিল না বলে ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।