This Article is From Apr 23, 2020

লকডাউনের সুপ্রভাব, উত্তর ভারতে বায়ুদূষণ "২০ বছরে সর্বনিম্ন": নাসা

বাতাসে কমেছে অ্যারোসোলের মাত্রা, এই অ্যারোসোল হ'ল এমন ছোটছোট শক্ত বা তরল কণা যা বাতাসের সঙ্গে মিশে দৃশ্যমানতা কমিয়ে দেয়, ফুসফুস এবং হৃদয়ের ক্ষতি করে

লকডাউনের সুপ্রভাব, উত্তর ভারতে বায়ুদূষণ

India Lockdown: দেশে টানা লকডাউন চলছে, ঘরবন্দি মানুষ, এর জেরেই কমেছে দূষণের মাত্রা

হাইলাইটস

  • লকডাউনে মানুষ ঘরবন্দি থাকায় যেন হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে প্রকৃতি
  • নাসার উপগ্রহ চিত্র জানাচ্ছে, উত্তর ভারতে এখন বায়ুদূষণ ২০ বছরে সর্বনিম্ন
  • তবে উত্তর ভারতের তুলনায় দক্ষিণ ভারতে বায়ুদূষণের মাত্রা খানিকটা হলেও বেশি
ওয়াশিংটন:

করোনা সংক্রমণ (Coronavirus) কমাতে ২৫ মার্চ থেকে সারা ভারত লকডাউনের আওতায়, ফলে ঘরবন্দি (India Lockdown) থাকতে হচ্ছে মানুষকে। আর এরই সুফল মিলেছে প্রকৃতিতে। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা জানাচ্ছে যে, এই লকডাউনের ফলেই ভারতের দূষণ (Air pollution) একধাক্কায় অনেকটা কমে গেছে। ন্যাশনাল অ্যারোনটিকস অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (NASA) বলছে, গত ২০ বছরের মধ্যে এই প্রথম উত্তর ভারতের বায়ুদূষণ বিরাট মাত্রায় কমতে দেখা গেছে। নাসার উপগ্রহ চিত্রে দেখা যাচ্ছে, লকডাউনের পর বাতাসে অ্যারোসোলের (Aerosol) মাত্রা এতটাই নেমে গেছে যে তা একরকম ঐতিহাসিকই বলা চলে। আপনার মনে হতেই পারে যে এই অ্যারোসেল ঠিক কী? এই অ্যারোসোল হ'ল এমন ছোটছোট শক্ত বা তরল কণা যা বাতাসের সঙ্গে মিশে দৃশ্যমানতা কমিয়ে দেয়। এটি বাতাসের সঙ্গে মিশে থাকায় মানুষের ফুসফুস এবং হৃদযন্ত্রেরও ক্ষতি করে বলেই জানা যায়।

ভারতে করোনা আক্রান্ত ২১,৩৯৩ জন; গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডের গ্রাসে ৪১, মোট মৃত ৬৮১

নাসার মার্শাল স্পেস ফ্লাইট সেন্টারের ইউনিভার্সিটিস স্পেস রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশন বা ইউএসআরএ–র বিজ্ঞানী পবন গুপ্তা বলেন, ‘"আমরা জানতাম লকডাউনের পর নানা জায়গায় বায়ুমণ্ডলের মধ্যে একটা বড় পরিবর্তন দেখতে পাবো। কিন্তু গঙ্গা অববাহিকায় বছরের এই সময় অ্যারোসোলের মাত্রা এতো কম হবে তা ভাবতে পারিনি, এমন অবস্থা আমি কোনওদিন দেখিনি"।

এদিকে দক্ষিণ এবং মধ্য এশিয়ার কার্যকরী সহকারী সচিব অ্যালিস জি ওয়েলস টুইট করেন এই বলে যে, "২০১৬ থেকে শুরু করে প্রতি বছর বসন্তে এই উপগ্রহ চিত্র তুলে থাকে নাসা। ভারত এবং গোটা বিশ্ব যখন আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবে তখন এটা ভুললে চলবে না মানুষের একজোট সহযোগিতাই প্রকৃতিকে পরিষ্কার রাখতে পারে"।

অনলাইনে ক্লাস করাতে সমস্যা নেটওয়ার্ক, পড়ানোর জন্যে তাই গাছে উঠলেন শিক্ষক

ঠিক কী কারণে হঠাৎ করে দেশের বায়ুমণ্ডলে দূষণের মাত্রা এতটা কমে গেল প্রথমে তা বুঝতে বেশ খানিকটা সময় লাগে বিজ্ঞানীদের। পরে নাসার বিজ্ঞানীরা বুঝতে পারেন মার্চের শেষের দিকে উত্তর ভারতে হওয়া ভালো বৃষ্টিই বায়ুমণ্ডল থেকে অ্যারোসোলের মাত্রা কমিয়ে দেশকে দূষণ‌মুক্ত করতে আরও সহায়তা করেছে। 

তবে লকডাউন চলাকালীন উত্তর ভারতের বাতাস যতটা পরিশুদ্ধ হয়েছে, দক্ষিণ ভারতের বাতাস কিন্তু ততটা পরিষ্কার হয়নি। দক্ষিণ ভারতের বাতাসে ধূলিকণার মাত্রা যা আশা করা হয়েছিল, তার চেয়ে কিছুটা বেশিই আছে বলে জানিয়েছে নাসা। আবহাওয়ার কারণেই এই তারতম্য বলে মনে করা হচ্ছে।