This Article is From May 28, 2019

ইস্তফার ব্যাপারে রাহুল অনড়ই, আবার বৈঠকে বসতে পারে কংগ্রেসের কার্যনির্বাহী কমিটি

বিপর্যয়ের পর গত শনিবার প্রথম বৈঠকে বসে। কার্যনির্বাহী কমিটির সেই বৈঠকে  ইস্তফা দিতে চান রাহুল। তা সর্বসম্মতিতে খারিজ হয়ে যায়

কার্যনির্বাহী কমিটির সেই বৈঠকে ইস্তফা দিতে চান রাহুল, তা সর্বসম্মতিতে খারিজ হয়ে যায়

হাইলাইটস

  • রাহুল অনড়ই, আবার বৈঠকে বসতে পারে কংগ্রেসের কার্যনির্বাহী কমিটি
  • সূত্র থেকে এনডিটিভি জানতে পেরেছে আগামী সপ্তাহে এই বৈঠক হতে চলেছে
  • রাহুল একাধিকবার স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি সভাপতির দায়িত্ব পালন করবেন না
নিউ দিল্লি:

পদ ছাড়ার ব্যাপারে এখনও অনড় কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী (Congress President Rahul Gandhi) । আর তাই আবারও কার্যনির্বাহী কমিটি বৈঠক (Congress Working Committee) ডাকা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। সূত্র থেকে এনডিটিভি জানতে পেরেছে আগামী সপ্তাহে এই বৈঠক হতে চলেছে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে রাহুল একাধিকবার  স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি সভাপতির দায়িত্ব পালন করবেন না। তবে দলের অন্য দায়িত্ব পালন করবেন। তাই নতুন কাউকে সভাপতি করা হবে নাকি রাহুলকেই পদে থেকে যেতে অনুরোধ করা হবে  তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠক  হতে চলেছে। কংগ্রেসের এই সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারক কমিটি (Highest Policy Making Body)  লোকসভা নির্বাচনের (General Election) বিপর্যয়ের পর গত শনিবার প্রথম বৈঠকে বসে। কার্যনির্বাহী কমিটির সেই বৈঠকে  ইস্তফা দিতে চান রাহুল। তা সর্বসম্মতিতে খারিজ হয়ে যায়।

হারের পরে রাজস্থানে বাড়ছে কংগ্রেসের অভ্যন্তরীণ সংকট

নিজের মা সোনিয়া গান্ধী এবং বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও যে সভাপতির দায়িত্বে আসবেন না তাও জানিয়ে দিয়েছেন রাহুল। তাঁর স্পষ্ট কথা গান্ধী- নেহরু পরিবার থেকেই যে সভাপতি করতে হবে এমন কোনও মানে নেই। এমতাবস্থায় আগামী দিনে দল কীভাবে পরিচালিত হবে তা ঠিক করতে বৈঠকে বসতে চলেছে কংগ্রেস। এরই মধ্যে কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা শশী থারুর এনডিটিভিকে বলেছেন রাহুল এই হারকে ব্যক্তিগতভাবে নিচ্ছেন বলে দায়িত্ব ছাড়তে চাইছেন। এতে তাঁর নিজের বা কংগ্রেসের ভাল হবে না।

দলের দুই নেতাকে তাঁর বিকল্প খুঁজতে বললেন কংগ্রেস সভাপতি

গতকাল কংগ্রেসের দুই প্রবীণ নেতা আহমেদ পটেল এবং কে কে বেনুগোপালের সঙ্গে বৈঠক করেছেন রাহুল। সূত্রের খবর সেখানে তিনি বলেছেন তাঁর বিকল্প খোঁজার কাজ শুরু হোক। মানে তিনি ছেড়ে দিলে কাকে সভাপতি করা হবে তা নিয়ে আলোচনা শুরু করুক কংগ্রেস। যদিও পরে টুইট করে সেই বক্তব্য খারিজ করেছেন সোনিয়া গান্ধীর রাজনৈতিক সচিব তথা রাজ্যসভার সাংসদ আহমেদ পাটেল। তিনি বলেছেন কংগ্রেস সভাপতির সঙ্গে তাঁর বৈঠক একেবারেই দলের পরিচালনা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ছিল। যে সমস্ত জল্পনা এবং বক্তব্য এই বৈঠককে ঘিরে তুলে ধরার চেষ্টা হচ্ছে তা ভিত্তিহীন।