‘‘বিজেপি, কংগ্রেস ভোটারদেরও মুখ্যমন্ত্রী’’: শপথগ্রহণে বললেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল

আম আদমি পার্টির (AAP) প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal) রবিবার রামলীলা ময়দানে তৃতীয় বারের জন্য দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ নিলেন।

‘‘বিজেপি, কংগ্রেস ভোটারদেরও মুখ্যমন্ত্রী’’: শপথগ্রহণে বললেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল

২০১৫ সালেও রাম‌লীলা ময়দানেই শপথ নিয়েছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল

হাইলাইটস

  • তৃতীয় বার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ অরবিন্দ কেজরিওয়ালের
  • শপথগ্রহণের আগে শনিবার কেজরিওয়াল তাঁর মন্ত্রীদের নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানান
  • নির্বাচনে ৭০ আসনের মধ্যে ৬২ আসন পেয়ে দুরন্ত জয় পেয়েছে আম আদমি পার্টি
নয়াদিল্লি: দিল্লির রামলীলা ময়দানে (Ramlila Maidan) মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন আম আদমি পার্টির (Aam Aadmi Party) প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal)। তাঁর সঙ্গে লালকেল্লা সংলগ্ন ওই বিরাট ময়দানে তাঁর সঙ্গে তাঁর ছয় মন্ত্রীরও শপথগ্রহণ। তাঁরা হলেন মণীশ সিসোদিয়া, সত্যেন্দ্র জৈন, গোপাল রাই, কৈলাস গেহলত, ইমরান হোসেন ও রাজেন্দ্র পাল গৌতম। জনতাকে এই জয় উৎসর্গ করে অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, ‘‘নির্বাচন শেষ। কোনও ব্যাপার নয়, আপনি কাদের ভোট দিয়েছেন। আপনি আমার পরিবারের সদস্য। কোনও কিছুই আমাকে কাজ করা থেকে বিরত করতে পারবে না।’’ নির্বাচনে ৭০ আসনের মধ্যে ৬২ আসন পেয়ে দুরন্ত জয় পেয়েছে আম আদমি পার্টি। বিজেপি পেয়েছে মাত্র আটটি। ২০১৫ সালের কাছাকাছিই ফলাফল করেছে আম আদমি পার্টি।

রইল এ সম্পর্কে ১০ তথ্য

  1. সূত্রানুসারে, কেজরিওয়াল তাঁর নতুন পর্যায় শুরু করতে চলেছেন পুরনো দল নিয়েই। অর্থাৎ নতুন সরকারে কোনও নতুন মন্ত্রীকে যোগ করা হচ্ছে না মন্ত্রিসভায়। যদিও জল্পনা রয়েছে, অতিশি ও রাঘব চাড্ডা হয়তো মন্ত্রিসভায় সুযোগ পেতে পারেন। 

  2. পুরনো দ‌লের মণীশ সিসোদিয়া, সত্যেন্দ্র জৈন, গোপাল রাজ, কৈলাস গেহলত, ইমরান হোসেন ও রাজেন্দ্র গৌতম— মন্ত্রিসভায় থাকছেন। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁরাও রবিবার দুপুরে কেজরিওয়ালের সঙ্গে শপথগ্রহণ করবেন। 

  3. শপথগ্রহণের আগে শনিবার কেজরিওয়াল তাঁর মন্ত্রীদের একটি নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানান। দলীয় সূত্র অনুযায়ী, সেই সময় আগামী পাঁচ বছরের পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করেন তাঁরা। 

  4. আম আদমি পার্টি চেয়েছে শপথগ্রহণ হোক মূলত দিল্লি-কেন্দ্রিকই। তাই কোনও শীর্ষস্থানীয় বিরোধী নেতাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি রবিবারে অনুষ্ঠানের জন্য। সংবাদপত্র্রে প্রথম পাতায় বিজ্ঞাপন দিয়ে অরবিন্দ কেজরিওয়াল শহরবাসীকে এই শপথগ্রণে উপস্থিত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। 

  5. অনুষ্ঠানে থাকবেন প্রায় ৫০ জন স্কুল শিক্ষক, চিকিৎসক, পরীক্ষায় শীর্ষ স্থানাধিকারী, অটো চালক, শৌচকর্মীদের। তাঁদের ‘দিল্লির নির্মাতা' হিসেবে দেখানো হবে। মঞ্চে অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও অন্যান্যদের সঙ্গে তাঁদেরও দেখা যাবে। 

  6. দিল্লির বিখ্যাত রামলীলা ময়দানেই ৫১ বছরের কেজরিওয়ালের রাজনৈতিক যাত্রার সূচনা হয়েছিল। এখানেই আন্না হাজারের নেতৃত্বে দুর্নীতি বিরোধী আন্দোলনে শামিল হয়েছিলেন তিনি। শনিবারই ময়দান সংলগ্ন অঞ্চলে কেজরিওয়ালের ছবি সহ ‘ধন্যবাদ দিল্লি' লেখা বড় ব্যানার টাঙানো হয়েছে। 

  7. এই ময়দানে প্রায় ১.২৫ লক্ষ মানুষ থাকতে পারেন। সূত্রানুসারে, আপ মনে করছে প্রায় ১ লক্ষ মানুষ এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। সকাল ১০টায় অনুষ্ঠান শুরু হবে। শপথগ্রহণ শুরু হবে ১২.১৫ নাগাদ। 

  8. অনুষ্ঠানের জন্য কড়া সতর্ক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। প্রায় ৩,০০০ নিরাপত্তা কর্মী এদিন মাঠে থাকবেন বলে সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে। সিসিটিভি ক্যামেরা ও ড্রোন থাকবে। 

  9. ২০১৫ সালে ১৪ ফেব্রুয়ারি শপথ নিয়েছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। রামলীলা ময়দানেই হয়েছিল অনুষ্ঠান। তার আগে ২০১৩ সালে তাঁর প্রথম শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানও রামলীলা ময়দানেই হয়েছিল। 

  10. অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছেন, আপের জয় এক নতুন ধরনের রাজনীতির দিকে ইশারা করছে। জয়ের পর কেজরিওয়াল প্রথমেই বলেছিলেন, ‘‘দিল্লিবাসীরা, আপনারা দারুণ কাজ করেছেন। আপনাদের ভালবাসি।''



Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com