সিএএএ-বিক্ষোভের বিরোধিতায় রাষ্ট্রপতিকে চিঠি প্রাক্তন বিচারপতি, সেনা আধিকারিকদের

স্বাক্ষরকারীদের তরফে বলা হয়েছে, নাগরিকত্ব সংশোধন আইন নিয়ে “মিথ্য এবং অসাধু তথ্য” ছড়িয়েছে

সিএএএ-বিক্ষোভের বিরোধিতায় রাষ্ট্রপতিকে চিঠি প্রাক্তন বিচারপতি, সেনা আধিকারিকদের

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে

নয়াদিল্লি:

নাগরিকত্ব আইন, জাতীয় নাগরিকপঞ্জী (NRC) এবং জাতীয় জনসংখ্যাপঞ্জীর (NPR)  বিরুদ্ধে “মিথ্য এবং উদ্দ্যেশ প্রণোদিত” প্রচার চলছে দেশের ক্ষতি করার জন্য, সোমবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে (Ram Nath Kovind) চিঠি দিয়ে এমনটাই জানালেন প্রাক্তন বিচারপতি, আমলা, সেনা আধিকারিক এবং শিক্ষাবিদ সহ মোট ১৫০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি। চিঠিতে, গুরুত্ব দিয়ে নাগরিকত্ব আইনের (Citizenship Amendment Act) বিরুদ্ধে চলতে থাকা বিক্ষোভকে দেখার জন্য কেন্দ্রকে অনুরোধ জানানো হয়েছে, এবং দেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে রক্ষা করা এবং এর পিছনে থাকা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছে।

চিঠিতে স্বাক্ষরকারীদের মধ্যে রয়েছেন, বিভিন্ন হাইকোর্টের ১১ জন প্রাক্তন বিচারপতি, ২৪  জন অবসরপ্রাপ্ত আইএএস আধিকারিক, ১৬ জন অবসরপ্রাপ্ত আইপিএস আধিকারিক, এবং ১৮ জন প্রাক্তন লেফটেন্যান্ট জেনারেল, তাঁদের তরফে বলা হয়েছে, দেশজুড়ে “ভীতি” ছড়াচ্ছে।

তাঁদের তরফে বলা হয়েছে “যৌথভাবে” প্রচার চালানো হচ্ছে, তার ফলে বিক্ষোভ হিংসাত্মক আকার ধারণ করছে, ফলে সরকারি এবং ব্যক্তিগত সম্পত্তির ক্ষতি হচ্ছে।

স্বাক্ষরকারীদের তরফে আরও বলা হয়েছে, নাগরিকত্ব সংশোধন আইন, জাতীয় জনসংখ্যাপঞ্জী এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জী নিয়ে “মিথ্যা এবং অসাধু” তথ্য ছড়িয়েছে।

তাঁদের তরফে বলা হয়েছে, যেখানে নাগরিকত্ব আইন আনা হয়েছে, সেখানে এনপিআর এবং এনআরসি, স্বাধীনতার পর থেকেই ভারতের আলোচনায় এনপিআর এবং এনআরসি কার্যকরের কথা বলা হয়েছে। 

বিশিষ্টদের তরফে আরও বলা হয়েছে, “নিরাপত্তা নিয়ে এই বিক্ষোভে ব্যপক প্রভাব রয়েছে এবং আমাদের মাতৃভূমির জন্য নয়। যেখানে বাহ্যিকভাবে কেন্দ্রের নীতির বিরোধিতা করা হয়েছে, তারা দেশের কাঠামো ধ্বংস করার মতো কাজ করছে এবং দেশের ঐক্য ও অখণ্ডতার ক্ষতি করছে”।

নাগরিকত্ব সংশোধন আইনে, ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান থেকে যে  সমস্ত হিন্দু, শিখ, পার্সি এবং খ্রিশ্চান সম্প্রদায়ভুক্ত ব্যক্তি ভারতে এসেছেন,তাঁরা অবৈধ অনুপ্রবেশকারী বলে চিহ্নিত হবেন না, বরং তাঁদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com