রেলের সম্পত্তি ভাঙচুরের অভিযোগে বাংলা, বিহার, অসম থেকে ২১ জন গ্রেফতার

রেলের সম্পত্তি ভাঙচুর ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ২১ জনকে গ্রেফতার করেছে আরপিএফ।

রেলের সম্পত্তি ভাঙচুরের অভিযোগে বাংলা, বিহার, অসম থেকে ২১ জন গ্রেফতার

প্রতিবাদীরা আন্দোলনের সময় বাসে, ট্রেনে ভাঙচুরের পাশাপাশি রেল অবরোধ করেছিল (ফাইল)

হাইলাইটস

  • রেলের সম্পত্তি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, লুঠপাটের ঘটনায় ২১ জন গ্রেফতার
  • পশ্চিমবঙ্গ, বিহার ও অসম থেকে এই অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়েছে
  • প্রায় ৮৯ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ আদায় করা হবে, জানিয়েছে আরপিএফ
নয়াদিল্লি:

রেলের সম্পত্তি (Railway Proeprty) ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ এবং লুঠপাটের (Arson) ঘটনায় ২১ জনকে গ্রেফতার (Arrest) করেছে আরপিএফ। পশ্চিমবঙ্গ (WB), বিহার ও অসম, এই তিন রাজ্য থেকে চিহ্নিত করে এই ২১ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন আরপিএফের (RPF) এক শীর্ষ আধিকারিক। তিনি বলেছেন, ধৃতদের থেকে ক্ষতিপূরণ বাবদ প্রায় ৮৮ কোটি টাকা আদায়(Recovery) করা হবে। জানা গেছে, ১১ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতির সিলমোহরের পর আইনে রূপান্তরিত হয় সিএ (CA)  বিল।তারপরেই উত্তাল হয় দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল। পথে নামেন প্রতিবাদীরা। সেই প্রতিবাদের রেশ এসে পৌঁছয় ও বিহারে। অভিযোগ সে সময় যথেচ্ছ চলে রেলের সম্পত্তি ভাঙচুর, লুঠপাট ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। আইনের প্রতিবাদে ওই তিন রাজ্যের একাধিক জায়গায় হয়েছিল রেল অবরোধও। 

"৩৭০ ধারা বাতিল একটি ঐতিহাসিক পদক্ষেপ", বললেন সেনাপ্রধান

তারপরেই এই ধরণের হামলা করা হাতে রুখতে সক্রিয় হয় রেল মন্ত্রক। খোদ রেলমন্ত্রী পীযুষ গয়াল পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আবেদন করেছিলেন, রেলের সম্পত্তি ভাঙচুরে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে। রেল বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছিল আরপিএফের নেতৃত্বে তদন্ত করে প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতির একটা হিসেবে তৈরি করতে। পাশাপাশি অভিযুক্তদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার করার নির্দেশ গিয়েছিল সেই নির্দেশ মেনেই এই আইনি পদক্ষেপ বলে আরপিএফ সূত্রে খবর। মন্ত্রক সূত্রে দাবি করা হয়েছে, এযাবতকাল জিআরপি ২৭টি অভিযোগ, আরপিএফ ৫৪টি অভিযোগ দাখিল করেছে। সেই অভিযোগের সূত্র টেনেই গ্রেফতার হয়েছে ১১ জন। 

আরপিএফ-এর একটা সূত্র এক প্রসঙ্গে বলেছে, তদন্তে একাধিক ভিডিও ফুটেজ আমরা হাতে পেয়েছি। সেই ফুটেজ দেখে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করে আর অপরাধস্থল থেকে গ্রেফতার করা অভিযুক্ত মিলিয়ে মোট গ্রেফতারির সংখ্যা ২১। ওই ভিডিও ফুটেজ এখনও খতিয়ে দেখা হচ্ছে প্রয়োজনে গ্রেফতারি বাড়তে পারে। রেলের কমার্শিয়াল বিভাগ অভিযুক্তদের ক্ষতিপূরণ আদায়ের নোটিশ পাঠাবে।'   

এদিকে ওই ভাঙচুরের ঘটনার পর অভিযুক্তদের শাস্তি দিতে গুলি চালনার নিদান দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় রেল প্রতিমন্ত্রী। তিনি প্রকাশ্যে বলেছিলেন, মন্ত্রকের মন্ত্রী হিসেবে আমি বলছি রেলের সম্পত্তি ভাঙচুর ও অগ্নি সংযোগের ঘটনায় যারা অভিযুক্ত তাদের দেখলেই গুলি চালান। তাঁর এই মন্তব্য ঘিরে সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছিল।  

More News