Arun Jaitley: 'কামাল কে নেতা কামাল কে অ্যাচিভমেন্ট....' আমূলের শ্রদ্ধা

Arun Jaitley: একটি গ্রাফিক মনোক্রোম পোস্টার ট্যাগ করে সংস্থা স্মরণ করে অরুণ জেটলিকে।  ট্যাগলাইনে লেখা ছিল: "কামাল কে নেতা, কামাল কে অ্যাচিভমেন্ট।"

Arun Jaitley: 'কামাল কে নেতা কামাল কে অ্যাচিভমেন্ট....' আমূলের শ্রদ্ধা

Arun Jaitley: অরুণ জেটলিকে শ্রদ্ধা আমূলের

নয়া দিল্লি:

নিজস্ব ভঙ্গিতে প্রয়াত প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিকে(Arun Jaitley) শ্রদ্ধা জানাল বিজ্ঞাপন দুনিয়ার খ্যাতনামা সংস্থা আমূল (Amul)। একটি গ্রাফিক মনোক্রোম পোস্টার ট্যাগ করে সংস্থা স্মরণ করে অরুণ জেটলিকে।  ট্যাগলাইনে লেখা ছিল: "কামাল কে নেতা, কামাল কে অ্যাচিভমেন্ট।" পোস্টারে প্রাক্তন মন্ত্রীর সাদা-কালো ছবির চারপাশে পদ্ম ফুল আর তোড়া। যা বিজেপি দলের প্রতীক। টুইটে লেখা, "মাননীয় মন্ত্রী এবং আইনজীবীকে শ্রদ্ধার্ঘ্য ...,"।

বিজেপি নেতাদের মারতে অতিপ্রাকৃত শক্তি প্রয়োগ করছে বিরোধীরা: প্রজ্ঞা ঠাকুর

প্রসঙ্গত, গত দু-সপ্তাহ ধরে শ্বাসকষ্টে ভোগার পর দিল্লির এইমস হাসপাতালে শনিবার শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জেটলি। বয়স হয়েছিল মাত্র ৬৬ বছর। রবিবার নিগমবোধ ঘাটে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।

জেটলি মোদি সরকারের প্রথম মেয়াদে যে সমস্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সাথে কাজ করেছিলেন, তাঁদের বেশিরভাগই রবিবার তাঁর শেষকৃত্যে এসেছিলেন। উপস্থিত ছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, মণীশ সিসোদিয়া, কংগ্রেসের জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া এবং জেটলির এক সময়ের প্রতিপক্ষ আইনজীবী কপিল সিব্বাল। যদিও বিদেশে থাকার ফলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি উপস্থিত থাকতে পারেননি জেটলির শেষকৃত্যে। তিনি রবিবার ফিরে আসার প্রস্তাব জানিয়েছিলেন জেটলির পরিবারকে। তবে জেটলির পরিবার তাতে সম্মতি জানাননি। 

পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষকৃত্য অরুণ জেটলির, উপস্থিত ছিলেন শীর্ষ নেতারা

 অরুণ জেটলি প্রথমে ২০০০ সালে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ি সরকারের মন্ত্রিপরিষদের মন্ত্রী ছিলেন। ২০০৯-এর জুন থেকে তিনি রাজ্যসভায় বিরোধী দলের নেতার দায়িত্বও পালন করেন। ২০১৪-য়  মোদি সরকারের প্রথম মেয়াদের মন্ত্রিসভায় তাঁকে অর্থমন্ত্রীর পদ দেওয়া হয়। পরে স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ায় ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান।

বিদেশ সফরে থাকাকালীনই প্রধানমন্ত্রী জেটলির মৃত্যুর খবর পেয়ে টুইটে জানান, "আমি কল্পনা করতে পারছি না যে আমার বন্ধু চলে গেল। আর আমি এখানে এতদূরে! " তিনি আরও বলেন, "কিছুদিন আগেই আমরা প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে হারিয়েছি। আজ অরুণ চলে গেলেন...। দেশ দুই মহান নেতাকে হারাল।"