৮ জুন বাংলায় ‘ভার্চুয়াল’ সভায় ভাষণ দেবেন অমিত শাহ

শেষবার কলকাতায় শহিদ মিনারের পাদদেশে জনসভায় বাংলার মানুষদের উদ্দেশে ভাষণ দিতে দেখা গিয়েছিল অমিত শাহকে।

৮ জুন বাংলায় ‘ভার্চুয়াল’ সভায় ভাষণ দেবেন অমিত শাহ

৮ জুন বাংলার জনগণের উদ্দেশে ভাষণ দেবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা অমিত শাহ (Amit Shah) আগামী ৮ জুন বাংলার জনগণের উদ্দেশে ভাষণ দেবেন এক ‘ভার্চুয়াল' সভায় (virtual Rally)। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিল‌ীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) একথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, তাঁদের দল মানুষের কাছে পৌঁছে ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তনের প্রথম বছর পূর্তিতে নরেন্দ্র মোদি সরকারের কী কী সাফল্য তা ব্যাখ্যা করবে। পাশাপাশি কোভিড অতিমারীর মোকাবিলায় সরকার কী পদক্ষেপ করেছে সেকথাও জানানো হবে। দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘এই মুহূর্তে জনসভা নিষিদ্ধ। তাই আমরা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভার্চুয়াল সভার দিকে জোর দিচ্ছি। পাঁচদিন ব্যাপী দীর্ঘ প্রচারের প্রথম ভার্চুয়াল সভা হবে ৮ জুন। সাধারণ সভার মতো এই ভার্চুয়াল সভাতেও বক্তারা থাকবেন। এবং ৮ জুনের সভার প্রধান বক্তা হবেন অমিত শাহ। তিনি নয়াদিল্লি থেকে কথা বলেন।'' সোমবার সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন দিলীপ।

করোনা আবহেই বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতিতে ঘর গোছানো শুরু রাজ্য বিজেপির

এর আগে শেষবার কলকাতায় শহিদ মিনারের পাদদেশে জনসভায় বাংলার মানুষদের উদ্দেশে ভাষণ দিতে দেখা গিয়েছিল অমিত শাহকে। বিজেপির সূত্রানুসারে, ভার্চুয়াল সভায় রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে কোভিড সঙ্কট ও আমফানের দাপটের মোকাবিলায় তৃণমূল সরকারের ব্যর্থতাকে তুলে ধরা হবে।

দিলীপ ঘোষ জানাচ্ছেন, ‘‘ওই সভাগুলিতে আমরা তুলে ধরব সমস্যার মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের ব্যর্থতাকে। কীভাবে আমাদের দলীয় নেতাদের ত্রাণ নিয়ে যেতে দেওয়া হয়নি। তাঁদের ঘূর্ণিঝড়-বিধ্বস্ত এলাকাগুলিতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।''

আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচনের দিকে লক্ষ্য রেখে সোমবার নতুন করে সাজানো হয়েছে বিজেপির রাজ্য সংগঠন। নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর নাতি চন্দ্র বসু সিএএ ও এনআরসি ইস্যুতে দলের সমালোচনা করা হয়ে তাঁকে সংগঠন থেকে সরিয়ে নতুন বেশ কয়েকটি মুখকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

দলের মহিলা ও যুব মোর্চার দায়িত্ব নিতে নতুন ও তরুণ মুখকে আনা হয়েছে।

গত বছরের লোকসভা নির্বাচনে অভাবিত ভাবে ৪২টি আসনের মধ্যে বিজেপি ১৮টি দখল করার পর থেকেই ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে আরও সাফল্যের স্বপ্ন দেখছে গেরুয়া শিবির। প্রসঙ্গত, তৃণমূল পেয়েছিল ২২টি আসন। ২০১৪ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল ৩৪টি আসনে জিতেছিল।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)