"দিগ্বিজয় সিং হেরে গিয়ে ক্ষুব্ধ হয়েছেন": সন্ত্রাসবিরোধী বিলের সমালোচনা প্রসঙ্গে বললেন অমিত শাহ

মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিং-কে মোক্ষম জবাব অমিত শাহের, হেরে গিয়ে রেগে গিয়েছেন তিনি, কটাক্ষ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে সমঝোতা করছে বিজেপি, অভিযোগ করেন দিগ্বিজয় সিং


নয়াদিল্লি: 

শুক্রবার সংসদে সন্ত্রাসবিরোধী অবৈধ কার্যকলাপ (প্রতিরোধ) সংশোধনী বিল (ইউএপিএ) নিয়ে রীতিমতো বাগযুদ্ধ বেঁধে যায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah) এবং কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা দিগ্বিজয় সিংয়ের (Digvijaya Singh) মধ্যে। ইতিমধ্যেই সংসদের উভয়পক্ষেই পাস হয়েছে ইউএপিএ (UAPA) বিলটি। দলের সহকর্মী পি চিদাম্বরমকে সঙ্গে নিয়ে রাজ্যসভায় এই সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে শোনা যায় দিগ্বিজয় সিংকে। তিনি যুক্তি দেন এই যে. এই বিল পাস হলে এর অপব্যবহার করবে সরকারি এজেন্সিগুলি । প্রবীণ ওই কংগ্রেস নেতার এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে জবাব দিতে গিয়ে অমিত শাহ বলেন: "জরুরি অবস্থার সময় কী হয়েছিল? সমস্ত মিডিয়া নিষিদ্ধ ছিল, সমস্ত বিরোধী নেতারা জেলে গিয়েছিলেন। সেসময় ১৯ মাস কোনও গণতন্ত্র ছিল না। আপনি আমাদের বিরুদ্ধে আইনের অপব্যবহারের অভিযোগ তুলছেন? দয়া করে নিজেদের অতীতকে দেখুন"।

UAPA Bill 2019: সংসদে পাশ হল বিতর্কিত ইউএপিএ সংশোধনী বিল

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিংয়ের (Digvijaya Singh) সমালোচনা উত্তরে বলেন যে আসলে গত লোকসভা নির্বাচনে হেরে যাওয়ার কারণে ক্ষুব্ধ রয়েছেন কংগ্রেসের ওই নেতা। লোকসভা নির্বাচনে দিগ্বিজয় সিংয়ের বিরুদ্ধে ভোপাল কেন্দ্র থেকে বিজেপি প্রার্থী করে প্রজ্ঞা ঠাকুরকে। সেই সময় ২০০৮ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণের অভিযুক্ত প্রজ্ঞাকে প্রার্থী করায় দিগ্বিজয় সিং অভিযোগ করেন যে একজন সন্ত্রাসে অভিযুক্তকে মদত দিচ্ছে বিজেপি। "বিজেপি সভাপতি (শাহ) তাঁদের প্রার্থী করেছেন, যাঁরা এখনও সন্ত্রাসবাদের মতো অভিযোগে অভিযুক্ত রয়েছেন", সে সময় বলেন প্রবীণ ওই কংগ্রেস নেতা। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলে দেখা যায় প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের কাছে হেরে গেছেন দিগ্বিজয়। 

"দিগ্বিজয় সিং জি (Digvijaya Singh) রেগে আছেন বলে মনে হচ্ছে, তবে এটাই স্বাভাবিক, তিনি সবেমাত্র নির্বাচনে পরাজিত হয়েছেন ... তিনি অভিযোগ করেছিলেন যে এনআইএ (জাতীয় তদন্ত সংস্থা) এর তিনটি মামলায় কাউকে শাস্তি দেওয়া হয়নি। আমি আপনাকে বলব কেন হয়নি, কারণ আগে এইসব ক্ষেত্রে রাজনীতি করা হয়েছিল এবং একটি নির্দিষ্ট ধর্মের সঙ্গে সন্ত্রাসকে সংযুক্ত করার চেষ্টা করা হয়েছিল" সংসদে দাঁড়িয়ে বলেন অমিত শাহ (Amit Shah)।

তিনি (Amit Shah) এটাও মনে করিয়ে দেন যে, বিজেপি যখন বিরোধী আসনে ছিল তখনও তাঁরা  ইউএপিএ সংশোধনীকে সমর্থন করেছিল।

"যখন আমরা বিরোধী ছিলাম, আমরা পূর্বের ইউএপিএ (UAPA) সংশোধনী সমর্থন করি, ২০০৪, ২০০৮ বা ২০১৩ তে এই বিল আনা হয়েছিল। আমরা বিশ্বাস করি যে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপের পক্ষে সকলের সমর্থন করা উচিত। আমরা আরও বিশ্বাস করি যে সন্ত্রাসের কোনও ধর্ম নেই, এটি মানবতার বিরোধী, কোনও ব্যক্তি বিশেষ বা সরকারের বিরুদ্ধে নয়" বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (Amit Shah)।

এক সপ্তাহের মধ্যেই জম্মু কাশ্মীরে অতিরিক্ত ২৫,০০০ সেনা মোতায়েন করল কেন্দ্রীয় সরকার

দিগ্বিজয় সিং (Digvijaya Singh) বিজেপিকে জাতীয় সুরক্ষার সঙ্গে আপোষ করারও অভিযোগ করেন। "আমরা ওঁদের (বিজেপির) উদ্দেশ্য সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশ করছি। কংগ্রেস কখনই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আপোষ করেনি, এ কারণেই আমরা এই আইনটি নিয়ে আসি। আপনারাই সন্ত্রাসের সন্ত্রাসের সঙ্গে আপোষ করেছিলেন, প্রথমবার রুবাইয়া সঈদ জির মুক্তির সময় এবং দ্বিতীয়বার মাসুদ আজহারকে ছেড়ে দেওয়ার সময়। আমরা ইন্দিরা গান্ধিকে হারিয়েছি। রাজীব গান্ধি এবং বেয়ন্ত সিংকেও হারিয়েছি। তবু আমরা কখনই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আপোষ করিনি", বলেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা প্রবীণ ওই কংগ্রেস নেতা।

"আপনারা বলেছিলেন নোটবন্দির ফলে সন্ত্রাসবাদ খতম হবে। সেই আপনারাই আবার স্বাধীন ভারতের প্রথম সন্ত্রাসবাদী নাথুরাম গডসের প্রশংসা করেছেন। আমরা কীভাবে আপনাদের বিশ্বাস করতে পারি," বলেন ওই কংগ্রেস নেতা (Digvijaya Singh)।

বর্তমানের প্রচলিত আইনের সঙ্গে এই সংশোধনী পাস (UAPA) হওয়ার ফলে কেন্দ্রীয় সরকার এখন প্রয়োজনে ব্যক্তিবিশেষকেও সন্ত্রাসবাদী হিসেবে ঘোষণা করতে পারবে।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................