পুর আধিকারিক পেটানো মামলায় কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের ছেলের জামিন

ইন্দোর-৩ বিধানসভা আসন থেকে জিতে প্রথমবার বিধায়ক হন আকাশ বিজয়বর্গীয়,ভোপালে তাঁর আধিকারিক পেটানোর ভিডিও ভাইরাল।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
পুর আধিকারিক পেটানো মামলায় কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের ছেলের জামিন

পুর আধিকারিককে পেটানোর অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় আকাশ বিজয়বর্গীয়কে


ভোপাল: 

হাইলাইটস

  1. ভোপালের বিশেষ আদালত থেকে জামিন পান বিজেপি বিধায়ক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়
  2. পুর আধিকারিককে মারধরের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়
  3. বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের ছেলে আকাশ

এক পুর আধিকারিককে ক্রিকেট ব্যাট (Thrashed with cricket bat)দিয়ে মারধর করার মামলায় শনিবার জামিন( Bail) পেলেন বিজেপি বিধায়ক আকাশ বিজয়বর্গীয় (Akash Vijayvargiya) ।বুধবার তাঁকে সরকারি আধিকারিককে মারধর করা ও হুমকি দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার করে পুলিশ।গ্রেফতারির পর প্রাথমিক ভাবে তাঁকে আগামী ৭ জুলাই পর্যন্ত জেলবন্দি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়।এরপরেই নিজের জামিনের জন্যে আবেদন করেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের(Kailash Vijayvargiya)  ছেলে।বিজেপি বিধায়কের(BJP MLA) সেই আবেদনেই সাড়া দিয়ে তাঁকে জামিন দেয় ভোপালের বিশেষ আদালত।অথচ তাঁর গ্রেফতারির পরপরই আকাশ বিজয়বর্গীয়কে জেলা আদালত জানিয়ে দেয় যে তাঁর জামিনের আবেদন শোনা হবে না। জেলা আদালতের বিচারক বলেন, এই মামলাটি ভোপালের বিশেষ আদালতের অধীনে পড়ছে এবং এরপরেই মামলাটি ওই আদালতে স্থানান্তর করেন বিচারক। তবে আদালতে জামিন পেলেও বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের আকাশ বিজয়বর্গীয়ের সরকারি আধিকারিক পেটানোর ঘটনা তুমুল সমালোচিত হয়।ইন্দোর ৩ থেকে বিজেপির টিকিটে নির্বাচিত প্রথম বারের বিধায়কের ওই ধরণের আচরণের নিন্দায় সরব হন বিরোধীরা।

কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ছেলের ব্যাট দিয়ে আধিকারিক পেটানোর ঘটনায় রিপোর্ট তলব অমিত শাহের

বুধবার, ইন্দোরের(Indore)  গাঞ্জি কমপাউন্ড এলাকায় জবরদখল বিরোধী অভিযানে গিয়েছিলেন মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের দুই আধিকারিক  ধীরেন্দ্র ব্যাস ও অসিত খারে। সেই সময়েই আকাশের সঙ্গে তাঁদের কথা কাটাকাটি হয়। ওই আধিকারিককে শাসাতেও দেখা যায় আকাশ ও তাঁর সঙ্গীসাথীদের । “পাঁচ মিনিটের মধ্যে এখান থেকে চলে না গেলে পরের ঘটনার দায় আপনাদেরই নিতে হবে”,এমনভাবেই সরকারি আধিকারিকদের হুমকি দিতে দেখা যায় কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের ছেলে আকাশকে (Akash Vijayvargiya)। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই কথা কাটাকাটি মারামারিতে পরিণত হয়। তখনই ক্রিকেট ব্যাট হাতে ওই আধিকারিকদের মারধর(Thrashed with cricket bat) করতে শুরু করেন আকাশ, একজন পুলিশ আধিকারিক সেই সময় তাঁকে থামানোর চেষ্টা করলেও কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের(Kailash Vijayvargiya)  ছেলের রোষের হাত থেকে বাঁচেন নি আধিকারিক।

কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের ছেলে সরকারি আধিকারিককে পেটালেন ব্যাট দিয়ে

এই ঘটনার সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরাও। ফলে কিছুক্ষণের মধ্যেই কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের ছেলের সরকারি আধিকারিক পেটানোর(Thrashed with cricket bat) ওই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। “বিজেপিতে আমাদের শেখানো হয় যে প্রথমে আবেদন, পরে নিবেদন এবং তারপর দনাদন(অর্থাৎ প্রথমে অনুরোধ, আর তাতে কাজ না হলে আক্রমণ)”,ঘটনার পর সাংবাদিকদের বলেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের ছেলে আকাশ( Akash Vijayvargiya)। যদিও ওই কাণ্ডের পর ওইদিনই তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা দান ও সরকারি কর্মীকে হেনস্থার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়।এর আগে গত ৪ জুন বিদ্যুৎ না থাকার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে বিপাকে পড়েন।

ঝাড়খণ্ডে গণপিটুনিতে মৃত্যু,“দুঃখিত” মোদি, তবে রাজ্যকে দোষারোপ অনুচিত

মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের কুশপুত্তলিকা দাহ করে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। তখনই বিনা অনুমতিতে বিক্ষোভ আন্দোলন করার অভিযোগে বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়।যদিও এই ঘটনার পর অনেকেই তাঁকে সমর্থন করেন। এমনকি কিছু বিক্ষোভকারী “স্যালুট আকাশ জী” বলেও ধ্বনি দিতে থাকেন ইন্দোরের বিভিন্ন জায়গায়।

তবে সরকারি আধিকারিক পেটানোর এই মামলায় ক্ষুব্ধ হয় বিজেপি(BJP) নেতৃত্ব। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এই ঘটনার রিপোর্ট তলব করেন।রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা কমল নাথ এই ঘটনার নিন্দা করে বলেন, “ক্রিকেট ব্যাটকে জাতির বা দেশের জয়ের পর দেখানো হয়, গণতন্ত্রের হারে ব্যবহার করা হয় না”।  আকাশ বিজয়বর্গীয়ের (Akash Vijayvargiya) পাশাপাশি ২১ জন পুর আধিকারিককেও সাসপেন্ড করা হয় তাঁর কাণ্ডকারখানাকে সমর্থন করার জন্যে।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................