নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলা, নিখোঁজ ৯ জন ভারতীয় বংশোদ্ভূত

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে জোড়া হামলার ঘটনার পর থেকে ন’জন ভারতীয় বা ভারতীয় বংশোদ্ভূতও নিখোঁজ বলে জানা গিয়েছে। ওই ঘটনায় মারা গিয়েছেন ৪৯ জন।

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলা, নিখোঁজ ৯ জন ভারতীয় বংশোদ্ভূত

৪৯ জন নিহত হয়েছেন এই হামলার ঘটনায়।

ক্রাইস্টচার্চ:

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে জোড়া হামলার ঘটনার পর থেকে ন'জন ভারতীয় বা ভারতীয় বংশোদ্ভূতও নিখোঁজ বলে জানা গিয়েছে। ওই ঘটনায় মারা গিয়েছেন ৪৯ জন। ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের নিরূদ্দেশ হওয়ার খবর নিউজিল্যান্ডের ভারতীয় দূতাবাস জানিয়েছে। ওই ৪৯ জন নিহতের মধ্যে রয়েছেন ২ জন ভারতীয়ও। তৃতীয়জন লড়াই করছেন মৃত্যুর সঙ্গে। জানিয়েছেন এআইএমআইএম-এর নেতা আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। শুক্রবারের মনাজের সময়ই বন্দুকধারীরা ওই আক্রমণ চালায় বলে জানা গিয়েছে। শুধু মসজিদের ভিতরেই নয়, মসজিদের বাইরেও গুলি চলে। ৪৯ জন নিহত হয় এবং আহতের সংখ্যা ২০। প্রাথমিক তদন্তের পর এই হামলার ঘটনাটিকে ‘সন্ত্রাসবাদ' বলে অ্যাখ্যা দিয়ে পুলিশ জানিয়েছে, এর নেপথ্যে বর্ণবিদ্বেষের বীজও লুকিয়ে থাকার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না কোনওভাবেই।

হামলা চালিয়েছে মধ্য কুড়ির এক অস্ট্রেলিয় যুবক।

শরিকদের কীভাবে ধরে রাখতে হয় তা বিজেপির থেকে কংগ্রেসের শেখা উচিতঃ অখিলেশ

ভারতীয় হাই কমিশন টুইট করে সাহায্য প্রার্থনা করেছে।

হায়দরাবাদে থাকা একটি পরিবারের দুই সদস্যের মধ্যে একজন নিহত হয়েছেন এই ঘটনায়। তাঁর ভাই নিখৌঁজ। আসাদুদইন ওয়াইসি সাহায্য প্রার্থনা করেছেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের কাছে।

একটি সূত্র বলছে,  যেখানে গুলি চলেছে সেখানে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কয়েকজনও উপস্থিত ছিলেন। শহরের সমস্ত স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের তরফ থেকে  এখন দেশের মসজিদগুলিতে যেতে বারণ করা হয়েছে। শহরের সমস্ত স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে    বলে জানান পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ। পুলিশে তরফ থেকে সকলকে বাড়ির  ভেতরেই থাকতে অনুরোধ করা  হয়েছে। 

ইএসপিএন- ক্রিক ইনফোর সাংবাদিক মহম্মদ ইসলাম জানান, বাংলাদেশের ক্রিকেট  টিমের কয়েকজন সদস্য মসজিদে উপস্থিত ছিলেন। কোনও রকমে তাঁর সেখান  থেকে বেরিয়ে যান। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা সকলেই সুস্থ আছেন বলে জানা গিয়েছে।

গুলি চালনা পর থেকে গোটা দেশের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে । একাধিক জায়গায় তল্লাশি শুরু করেছেন পুলিশ আধিকারিকরা। হামলার সঙ্গে জড়িত সমস্ত  ব্যাপারটাই খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দারা।  কারা এই ঘটনা ঘটাল তা জানার চেষ্টা হচ্ছে।                      

More News