লাফাতে গিয়ে নদীর ধারে পাথরের খাঁজে আটকে মৃত্যু বাঘের! উদ্ধারে ব্যর্থ বনবিভাগ

প্রায় ৩৫ ফুট উচ্চতায় ওই নদীর উপরে নির্মিত একটি সেতু থেকে লাফিয়ে বাঘটি মেরুদণ্ডে ভারী আঘাত পেয়েছিল বলেই সন্দেহ করা হচ্ছে।

নদীর উপরে নির্মিত একটি সেতু থেকে লাফিয়ে বাঘটি মেরুদণ্ডে ভারী আঘাত পেয়েছিল বলেই সন্দেহ করা হচ্ছে।

চন্দ্রপুর:

সেতু থেকে নদীতে লাফ দিতে গিয়ে বেকায়দায় পড়ে মৃত্যু হয়েছে একটি বাঘের। প্রায় ৩৫ ফুট উচ্চতা থেকে লাফ দিতে গিয়ে নদীর ধারে থাকা পাথরের খাঁজে আটকে যায় বাঘের দেহটি। কোনওভাবেই নিজেকে সেখান থেকে বের করে আনতে পারেনি বাঘটি। এমনকি আহত অবস্থায় বাঘটিকে উদ্ধারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন বন বিভাগের কর্মীরাও। মহারাষ্ট্রের চন্দ্রপুর (Maharashtra's Chandrapur) জেলায় ঘটেছে এই ঘটনাটি। বুধবার চন্দ্রপুর থেকে প্রায় ২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত কুনাদা গ্রামের (Kunada village) কাছে সিরনা নদীর (Sirna river) তীরে বড় বড় পাথরের মাঝখানে আটকা পড়েছিল বাঘটি। প্রায় ৩৫ ফুট উচ্চতায় ওই নদীর উপরে নির্মিত একটি সেতু থেকে লাফিয়ে বাঘটি মেরুদণ্ডে ভারী আঘাত পেয়েছিল বলেই সন্দেহ করা হচ্ছে। আহত অবস্থায় আটকে পড়া বাঘটিকে উদ্ধারের সব চেষ্টাই করা হয়েছিল। তবে কাছাকাছি একটি খাঁচা রেখে দেওয়া সত্ত্বেও উঠে ঢুকে যেতে পারেনি বাঘটি, জানিয়েছে বন বিভাগ। বন বিভাগের এক কর্মী জানান, বাঘটি যখন খাঁচাটা কাছে টানার চেষ্টা করছিল তখন তার দাঁতেও আঘাত লাগে। 

আরও পড়ুনঃ Viral: এক বাঘিনীর জন্য দুই বাঘের ‘হিংস্র' লড়াই, ভিডিও জিতল ইন্টারনেট

“বৃহস্পতিবার সকালে নদীর ধারে বাঘটিকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়,” বলেন চন্দ্রপুর সার্কেলের চিফ কনজারভেটর, এসভি রামারাও। বুধবার বাঘটি একটি বন্য প্রাণীকে মেরে ফেলার পরে ওই সেতুর উপরে কিছুক্ষণ বিশ্রাম করছিল। এর পরেই নদীতে ঝাঁপ দেয় সে এবং স্পষ্টতই উপর থেকে পড়ে আহত হয় বাঘটি, জানিয়েছেন ওই আধিকারিক।

বাঘটির পড়ে যাওয়ার খবর পেয়েই বনবিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান শুরু করেন। তবে বেশি আলো না থাকায় বুধবার রাতে উদ্ধারকাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

রাতের বেলা বাঘের গতিবিধি পর্যবেক্ষণের জন্য কিছু বনকর্মীকে মোতায়েন করা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা।

আরও পড়ুনঃ কানে তীব্র যন্ত্রণা! এই ব্যক্তির কানের ভিতর থেকে উদ্ধার ১০ টিরও বেশি আরশোলা!!

রামারাও বলেন, “তবে, বৃহস্পতিবার সকালে গিয়ে দেখা যায় একেবারেই নড়াচড়া করছে না বাঘটি”।

পরে বাঘের মৃতদেহটি জল থেকে বের করে আনা হয়। ময়নাতদন্তের পরে মৃত্যুর সঠিক কারণটি জানা যাবে বলে জানিয়েছেন বনবিভাগের কর্মীরা।

More News