প্রথম ছবিতেই বাজিমাত, ইন্দো-জার্মান ফিল্মউইক ২০১৯ সম্মান পেল অর্জুনের ‘অব্যক্ত’

প্রথম ছবি ‘অব্যক্ত’য় মা-ছেলের মধ্যেকার না বলা অ-নে-ক কথা বলেছিলেন পরিচালক। সেই ছবি বাঙালি দর্শকদের তৃপ্ত করে পাড়ি দিয়েছিল ইন্দো-জার্মান ফিল্ম উইকে।

প্রথম ছবিতেই বাজিমাত, ইন্দো-জার্মান ফিল্মউইক ২০১৯ সম্মান পেল অর্জুনের ‘অব্যক্ত’

অব্যক্ত-য় অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়

কলকাতা:

অর্জুন যদি ছবি পরিচালনাকে ‘পাখির চোখ' বানান তাহলে ফলাফল বোধহয় এরকমই হয়। প্রথম ছবি ‘অব্যক্ত'য় (Abyakto) মা-ছেলের মধ্যেকার না বলা অ-নে-ক কথা বলেছেন পরিচালক। গতবারের কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেই ছবি বাঙালি দর্শকদের তৃপ্ত করে সম্প্রতি পাড়ি দিয়েছিল ইন্দো-জার্মান ফিল্ম উইকে (Indo-German Film week 2019)। সেখানে সেরা আঞ্চলিক ছবি-র (Best Regional Film) সম্মান পেয়েছে অর্জুন দত্তের ‘অব্যক্ত'। খবরে উপালি মুখোপাধ্যায়

জানেন, আইপিএস অর্পিতাকে সন্ত্রাস মোকাবিলার ট্রেনিং দিচ্ছেন কমলেশ্বর!

জন্ম থেকে বড় হওয়ার পথের পাথেয় জোগান মা। তিনি যেমন জন্মদাত্রী তেমনি শিক্ষায়-মননে-সংস্কৃতিতে সন্তানকে সেরা করে তোলেন তিনিই। কিন্তু জীবনের এই লম্বা সফরে থেকে যায় অনেক না বলা কথা। মা-সন্তানের সম্পর্কের মধ্যে। মা-ছেলের মধ্যে দিয়ে সেই দিকটাই দেখিয়েছেন পরিচালক। এই চিরন্তন সম্পর্কের কথা তাই ভালো লেগেছে দর্শকদের। তাঁদের কাছে তুলে ধরার পাশাপাশি একাধিক আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের আঙিনাতেও দেখা মিলেছে ‘অব্যক্ত'-র।বারবার প্রসংশিত হয়েছে অর্জুনের কাজ। বারবার অভিনন্দন কুড়িয়েছেন ছবির ছোট-বড় সমস্ত অভিনেতা। তার মধ্যেই খুশির খবর, এই বিশেষ সম্মান।

স্বাভাবিক ভাবেই আনন্দিত-উচ্ছ্বসিত টিম অব্যক্ত। টুইট করে ছবির প্রধান চরিত্র অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানান ছবির আর এক আন্তর্জাতিক মানের অভিনেতা আদিল হুসেন।  অভিনন্দন জানিয়েছেন অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ও। সবাইকে প্রত্যুত্তরে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান অর্পিতা।

কথা প্রসঙ্গে অর্জুন জানিয়েছেন, ছবি রিলিজের পর ২০টি চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হয়েছে ছবিটি। এটাই প্রথম আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। ছবিতে অর্পিতা ছাড়াও অভিনয় করেছেন, আদিল শাহ, অনির্বাণ ঘোষ, অনুভব কাঞ্জিলাল, খেয়া চট্টোপাধ্যায়। ছবিটি গতবারের কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবেও দেখানো হয়েছিল। আগামী নভেম্বরে ‘অব্যক্ত' মুক্তি পাবে সিটি অফ জয়-এ।

শুধুই ছবি বানাতে পারি, তাই ‘গোত্র'ই আমাদের প্রতিবাদের ভাষা: নন্দিতা রায়

এই ছবি দিয়ে বাংলা সিনে দুনিয়ায় হাতেখড়ি অনুভব কাঞ্জিলালেরও। তিনি ভীষণ আনন্দিত এবং উত্তেজিত বিশেষ খবর পাওয়ার সম্মান শুনে। অনুভবের কথায়, যেখানেই ছবিটি দেখানো হয়েছে সেখানেই সবার প্রসংশা কুড়িয়েছে অব্যক্ত। আমি খুব খুশি, এই টিমের সঙ্গে কাজ করতে পেরে।     

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com