বিরল পদক্ষেপ, প্রধানমন্ত্রী মোদির ভাষণ থেকে মোছা হল শব্দ

জাতীয় জনসংখ্যাপঞ্জী নিয়ে বিরোধীদের বিরুদ্ধে “মিথ্যা” ছড়ানোর অভিযোগ তুলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। মিথ্যা অসংসদীয় “মিথ্যা”, জানালেন আধিকারিকরা

বিরল পদক্ষেপ, প্রধানমন্ত্রী মোদির ভাষণ থেকে মোছা হল শব্দ

বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় বিরোধীদের একহাত নেন প্রধানমন্ত্রী মোদি

নয়াদিল্লি:

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সংসদে ভাষণ (Narendra Modi's speech) থেকে মুছে ফেলা হল একটি শব্দ, জাতীয় জনসংখ্যাপঞ্জী (National Population Register) নিয়ে বিরোধীদের আক্রমণ করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ব্যবহৃত একটি শব্দ মোছা হল। কংগ্রেসের গুলাম নবি আজাদের করা একটি মন্তব্যও মুছে ফেলা হয়েছে।  প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ থেকে কোনও শব্দ মুছে ফেলার ঘটনা বিরল, তবে অপ্রত্যাশিত হয়।

২০১৮ সালে বিকে হরিপ্রসাদকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদির মন্তব্য মুছে ফেলা হয়। তাঁর নামের আদ্যাক্ষর সম্পর্কে মন্তব্য করেন তিনি, যা অসম্মানজনক।

২০১৩ সালে রাজ্যসভায় তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এর মন্তব্য মুছে ফেলা হয়, সেই সময় বিরোধী দলনেতা অরুণ জেটলির সঙ্গে বিতর্ক চলছি। অরুণ জেটলিরও কিছু মন্তব্য মুছে ফেলা হয়।

সংসদে, অসংসদীয় শব্দ ব্যবহারের অনেক অভিযোগরয়েছে। প্রত্যেক বছর, নতুন নতুনশব্দ সেই তালিকায় যোগ হয়। সম্প্রতি, পাপ্পু, শ্যালক, জামাই, শব্দগুলি সেই তালিকায় যোগ হয়।

অসংসদীয় শব্দ ছিল গডসে বা নাথুরাম গড়সে। ২০১৫ সালে তৎকালীন অধ্যক্ষ সুমিত্রা মহাজন অসংসদীয় শব্দের তালিকা থেকে সেটি বাদ দেন। গান্ধি নিয়ে বিজেপি ও বিরোধীদের মধ্যে বাকযুদ্ধে এই শব্দটি ব্যবহৃত হয়। গডসেকে যাঁরা সম্মান দেন, তাঁদের প্রতি নরম মনোভাব পোষণ করার অভিযোগ রয়েছে শাসকদলের বিরুদ্ধে, যেমনটা প্রজ্ঞা ঠাকুর।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com