This Article is From Jan 16, 2020

Bank Strike-এর জেরে পরপর ৩দিন বন্ধ ব্যাংক, বন্ধ এটিএম পরিষেবাও? জেনে নিন...

Bank Strike on January 31, February 1:বেতনকাঠামো পুনর্গঠন সহ সপ্তাহে ৫ দিনের কাজের দাবিতে ৩১ জানুয়ারি ও ১ ফেব্রুয়ারি ধর্মঘটের ডাক ব্যাংক কর্মী সংগঠনের

Bank Strike-এর জেরে পরপর ৩দিন বন্ধ ব্যাংক, বন্ধ এটিএম পরিষেবাও? জেনে নিন...

Indian Bank Association: ১ ফেব্রুয়ারি বাজেট পেশের দিনেই ব্যাংক ধর্মঘটের ডাক

হাইলাইটস

  • ৩১ জানুয়ারি এবং ১ ফেব্রুয়ারি ব্যাংক ধর্মঘটের ডাক
  • ২ দিন ধর্মঘটের পরের দিন রবিবার হওয়ায় পরপর ৩ দিন বন্ধ পরিষেবা
  • বেতন বৃদ্ধি সহ নানা দাবিতে ওই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে
নয়া দিল্লি:

পরপর ৩ দিন বন্ধ থাকবে ব্যাংক, ফলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হতে পারে গ্রাহকদের। জানা গেছে, ইন্ডিয়ান ব্যাংকস অ্যাসোসিয়েশন (আইবিএ) এর সঙ্গে বেতন কাঠামো পুনর্বিবেচনা নিয়ে আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পরেই আগামী ৩১ জানুয়ারি (শুক্রবার) থেকে ১ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) ২ দিন দেশব্যাপী ধর্মঘটের (Bank Strike) ডাক দিয়েছে ব্যাংক ইউনিয়নগুলি (Bank Unions)। ২ দিন ধর্মঘটের (Bank Strike on January 31, February 1) পরের দিনটি রবিরার হওয়ায় মূলত পরপর ৩ দিন বন্ধ থাকবে ব্যাংকিং পরিষেবা। গত ১৩ জানুয়ারি ব্যাংক কর্মচারীদের বেতন কাঠামো পুনর্বিবেচনার জন্যে একটি বৈঠক হয়, কিন্তু সেই বৈঠকে কোনও ফয়সালা হয়নি বলেই জানা গেছে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ হবে। কিন্তু এই ব্যাংক ধর্মঘটের জেরে বাজেট পেশের দিনে ব্যাংক পরিষেবা বন্ধ থাকার সম্ভাবনা।

আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের প্রাক্তন সিইও ছন্দা কোছরের বাড়ি সহ সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ইডি

এদিকে সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, ৯টি ট্রেড ইউনিয়নের প্রতিনিধিত্বকারী ইউনাইটেড ফোরাম অফ ব্যাংক ইউনিয়নও ১১ থেকে ১৩ মার্চ, তিন দিনের ব্যাংক ধর্মঘট করার কথা ভাবছে। তবে তাঁদের দাবি একই, বেতনবৃদ্ধি। যেখানে ইউনাইটেড ফোরাম অফ ব্যাংক ইউনিয়নগুলি ১৫ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি করছে, সেখানে ইন্ডিয়ান ব্যাংকস অ্যাসোসিয়েশন ১২.২৫ শতাংশ বেতন বাড়ানোর সুপারিশ করেছে। এই বেতনবৃদ্ধির পরিমাণকেই  'অগ্রহণযোগ্য' আখ্যা দিয়ে ইউনাইটেড ফোরাম অফ ব্যাংক ইউনিয়নের রাজ্য আহ্বায়ক সিদ্ধার্থ খান বলেছেন, যদি তাঁদের দাবি পূরণ না হয় তবে এপ্রিল থেকে তাঁরা অনির্দিষ্টকালের ব্যাংক ধর্মঘটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের জন্য ধর্ম উল্লেখ করতে হবে না: অর্থ মন্ত্রক

এই মাসের শুরুর দিকেও, ট্রেড ইউনিয়নগুলি সরকারের "শ্রম বিরোধী নীতির" বিরুদ্ধে ভারত বন্ধ বা দেশব্যাপী বন্ধের ডাক দেয়। ওই ধর্মঘটের কারণে টাকা জমা এবং তোলা, চেক ক্লিয়ারিং সহ সামগ্রিক ব্যাঙ্ক পরিষেবাগুলি ব্যাহত হয়।

তবে লাগাতার ব্যাংক ধর্মঘটের কারণে এটিএম পরিষেবাতেও তার প্রভাব পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ফলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হতে পারে সাধারণ মানুষকে।