নেপালের ট্যুরিস্ট লজে গ্যাস লিক করে সন্দেহজনক মৃত্যু ৪ শিশু সহ ৮ ভারতীয়র!

দুই দম্পতি এবং চার শিশু মারা গিয়েছে এই মর্মান্তিক ঘটনায়। কেরল থেকে জনপ্রিয় পাহাড়ি পর্যটন কেন্দ্র পোখারাতে গিয়েছিল ১৫ জনের একটি দল। সেই দলেরই সদস্য ছিলেন এই আটজন।

নেপালের ট্যুরিস্ট লজে গ্যাস লিক করে সন্দেহজনক মৃত্যু ৪ শিশু সহ ৮ ভারতীয়র!

পর্যটকরা একটি ঘরে ঢুকে শরীর গরম করার জন্য একটি গ্যাস হিটার চালু করেন।

কাঠমাণ্ডু:

নেপালে বেড়াতে গিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু ৮ ভারতীয় পর্যটকের! সূত্রের খবর, নেপালের একটি রিসর্টে তাদের ঘরে সম্ভবত গ্যাস লিক হওয়ার কারণেই অচেতন হয়ে মৃত্যু হয়েছে ওই পর্যটকদের। তাদের মধ্যে চার শিশুও রয়েছে। পুলিশ সুপার সুশীল সিংহ রাঠোর জানিয়েছেন, ভারতীয় নাগরিকদের বিমানে করে HAMS হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাদের মৃত ঘোষণা করে চিকিৎসকরা। কাঠমাণ্ডু পোস্ট এক প্রতিবেদনে নিহতদের পরিচয় জানিয়েছে। নিহতরা হলেন- প্রবীণ কুমার নায়ার (৩৯), শরণ্য (৩৪), রঞ্জিত কুমার টিবি (৩৯), ইন্দু রঞ্জিত (৩৪), শ্রী ভদ্র (৯), অবিনব সোরায়া (৯), আবি নায়ার (৭) এবং বৈষ্ণব রঞ্জিত (২)।

দেশের ইতিহাস নিয়ে সইফের বক্তব্যের নিন্দায় তৈমুর প্রসঙ্গ তুললেন বিজেপি নেত্রী

কেরল সরকার মঙ্গলবার জানিয়েছে যে নেপালের একটি রিসর্টে সন্দেহজনকভাবে মারা যাওয়া আটজন কেরলবাসী পর্যটকদের মরদেহ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব যাতে এ রাজ্যে নিয়ে আসা যায় তা নিশ্চিত করতে সব পদক্ষেপই করবে সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন এই ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ভি মুরলিধরন জানিয়েছেন যে কাঠমাণ্ডুতে ভারতীয় দূতাবাসের কর্মকর্তারা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মৃতদেহগুলি ভারতে ফিরিয়ে আনার পদক্ষেপ করছেন। “আমরা কাঠমাণ্ডুতে ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি,” বলেন তিনি।

শ্রীনগরে বরফের আস্ত গাড়ি গড়েছেন যুবক! তুষার-গাড়ি দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন আম জনতা

দ্য হিমালয়ান টাইমস-এর খবরে বলা হয়েছে, দুই দম্পতি এবং চার শিশু মারা গিয়েছে এই মর্মান্তিক ঘটনায়। কেরল থেকে জনপ্রিয় পাহাড়ি পর্যটন কেন্দ্র পোখারাতে গিয়েছিল ১৫ জনের একটি দল। সেই দলেরই সদস্য ছিলেন এই আটজন।

Newsbeep

সফর শেষে তারা বাড়ি ফেরার পথেই রওনা হয়েছিলেন। সোমবার রাতে মকওয়ানপুর (Makawanpur) জেলার দামানের (Daman) এভারেস্ট প্যানোরমা রিসর্টে (Everest Panorama Resort) রাত কাটাতে ওঠেন তারা।

ওই রিসর্টের ম্যানেজার জানিয়েছেন, পর্যটকরা একটি ঘরে ঢুকে শরীর গরম করার জন্য একটি গ্যাস হিটার চালু করেন।

সব মিলিয়ে তারা মোট চারটি ঘর বুকিং করেছিলেন। যদিও তাদের মধ্যে আটজনই একটি ঘরে উঠেছিলেন এবং অন্যরা বাকি ঘরে থাকার ব্যবস্থা করেছিলেন। ম্যানেজার আরও জানান, ঘরের সমস্ত জানালা এবং দরজা ভিতর থেকে বন্ধ ছিল।

পুলিশের সন্দেহ ভেন্টিলেশন নেই, ফলত বায়ুচলাচলের অভাবেই প্রাণ হারিয়েছেন তারা।