ফের ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল মাটি

আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ভূকম্পনের সম্পূর্ণ প্রভাব খতিয়ে দেখা সম্ভব হয়নি। তবে প্রাথমিক রিপোর্টে তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর আসেনি।

ফের ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল মাটি

১৫০ কিলোমিটার তথা ৯২ মাইল এলাকা জুড়ে ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে।

হাইলাইটস

  • ফের ভূকম্পন অনুভূত হল ইন্দোনেশিয়ায়
  • ৬.১ মাত্রায় ভূকম্পন হয়েছে
  • কোনও সুনামির সতর্কবার্তা এখনো জারি করা হয়নি
জাকার্তা:

ফের ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল মাটি। রবিবার ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব দিকের উত্তর মালুকু প্রদেশে ৬.১ মাত্রায় ভূমিকম্প হয়েছে বলে জানিয়েছেন আমেরিকান সিসমোলজিস্টেরা। তবে তারা আরও জানিয়েছেন, কোনও সুনামির সতর্কবার্তা এখনো জারি করা হয়নি।

১৫০ কিলোমিটার তথা ৯২ মাইল এলাকা জুড়ে ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। আমেরিকান জিওলজিক্যাল সার্ভের মতে, উত্তর পশ্চিমের উপকূলবর্তী শহর এলাকায় ৩৭ কিলোমিটার গভীর একটি এলাকা থেকে ভূকম্পনের উৎপত্তি হয়েছিল। স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, ভূকম্পনের মাত্রা যথেষ্ট তীব্র হলেও তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। তারনেট এলাকার বাসিন্দা বোডি নুর্জিয়ান্টো সংবাদ সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘‘আমি বাড়িতে বসে টিভি দেখছিলাম। হঠাৎ ভূকম্পন অনুভব করি। বেশ জোরেই কম্পন হচ্ছিল, কিন্তু খুব দ্রুত তা থেমেও যায়। ফলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়তে পারেনি।''

আইপিএল ২০১৯, কলকাতা নাইট রাইডার্স বনাম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ: কোথায় দেখবেন

আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এখনো ভূকম্পনের সম্পূর্ণ প্রভাব খতিয়ে দেখা সম্ভব হয়নি। তবে প্রাথমিক যে রিপোর্ট পাওয়া গিয়েছে, তাতে তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর আসেনি।

ইন্দোনেশিয়ার আবহাওয়া এবং সুনামি বিভাগের প্রধান রহমান ট্রিয়োনো বলেন, ‘‘আমরা আরো বিশদে খতিয়ে দেখছি। কোনও ক্ষয়ক্ষতি খবর পাওয়া যায় কিনা।''

অভিষেকের স্ত্রীয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল শুল্ক দপ্তর

ইন্দোনেশিয়ায় মাঝেমধ্যেই সিসমিক এবং ভলক্যানিক ক্রিয়াকলাপের জন্য কম্পন অনুভূত হয়। ইন্দোনেশিয়া অবস্থানগতভাবে প্রশান্ত মহাসাগরের ‘রিং অফ ফায়ার' তালিকাভুক্ত অঞ্চলের মধ্যে পড়ে। এখানে মাঝেমধ্যেই টেকটোনিক প্লেট পরস্পরের সঙ্গে সংঘাত করে।

গত সেপ্টেম্বর ৭.৫ ম্যাগনিটিউডের একটি ভূকম্পনের ফলে পালু এবং সুলওয়েসি আইল্যান্ডের প্রায় ২২০০ মানুষ প্রাণ হারিয়েছিলেন।

২০০৪ সালের ২৬শে ডিসেম্বর ৯.১ মাত্রার ভূমিকম্প ইন্দোনেশিয়ায় প্রায় এক লক্ষ ৭০ হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছিল।