This Article is From May 16, 2020

দুটি ট্রাকের মুখোমুখি ধাক্কায় মৃত ২৪ পরিযায়ী শ্রমিক, আহত বহু

Migrants Accident: দুর্ঘটনার জেরে মৃত পরিযায়ী শ্রমিকদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ

দুটি ট্রাকের মুখোমুখি ধাক্কায় মৃত ২৪ পরিযায়ী শ্রমিক, আহত বহু

Auraiyya Accident: শনিবার ভোরে ওই ভয়াবহ দুর্ঘটনাটি ঘটে

হাইলাইটস

  • ফের ভয়াবহ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন কমপক্ষে ২৪ জন পরিযায়ী শ্রমিক
  • উত্তরপ্রদেশে শনিবার ভোররাতে ঘটে ওই দুর্ঘটনা
  • শ্রমিকরা যে ট্রাকে ছিলেন সেটি ধাক্কা মারে বিপরীত দিক থেকে আসা অন্য ট্রাকে
লখনউ:

ফের ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনায় (Migrants Accident) মৃত্যু হল পরিযায়ী শ্রমিকদের। শনিবার ভোর ৩টে নাগাদ পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে একটি ট্রাক মুখোমুখি ধাক্কা মারে বিপরীত দিক থেকে আসা অন্য আরেকটি ট্রাকে। উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) রাজধানী লখনউ থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে ঘটে ওই ভয়াবহ দুর্ঘটনা। ইতিমধ্যেই মারা গেছেন ২৪ জন পরিযায়ী শ্রমিক এবং গুরুতর আহত হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন আরও বহু শ্রমিক। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে জারি লকডাউনের (Coronavirus Lockdown) কারণে ওই শ্রমিকরা নিজেদের বাড়ি থেকে বহু দূরে কাজে এসে আটকে পড়েছিলেন। অনেক দিনের চেষ্টার পর একটি ট্রাকে করে ফেরার বন্দোবস্ত করতে পেরেছিলেন তাঁরা। কিন্তু আর বাড়ি ফেরা হল না ২৪ জন শ্রমিকের। দুর্ঘটনায় মর্মান্তিক মৃত্যু হল তাঁদের। উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনাই প্রথম নয়, এর আগেও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে ঘরে ফিরতে গিয়ে বলি হতে হয়েছে বহু শ্রমিককে। শনিবার ভোররাতের এই ঘটনা সেই সংখ্যা বাড়ালো মাত্র।

"আর কোনওদিন মুম্বই ফিরব না", শহর ছাড়ার আগে অভিমানী পরিযায়ী শ্রমিকরা

জানা গেছে, পরিযায়ী শ্রমিকদের ওই দলটি রাজস্থান থেকে যাত্রা শুরু করেছিল। তাঁদের মধ্যে ছিলেন বিহার, ঝাড়খণ্ড এবং পশ্চিমবঙ্গেরও শ্রমিক, সকলেই ঘরে ফিরতে চেয়েছিলেন তাঁরা। বহুদিন ধরে ভিনরাজ্যে আটকে থেকে মরিয়া হয়েছিলেন তাঁরা। তাই একরকম ঝুঁকি নিয়েই খাবারের প্যাকেট বহনকারী ওই ট্রাকে সওয়ার হয়েছিলেন তাঁরা। উত্তরপ্রদেশের আওরাইয়া জেলায় (Auraiyya Accident) ওই ভয়াবহ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরাতে যথেষ্ট ট্রেনের ব্যবস্থা করেনি পশ্চিমবঙ্গ সরকার: রেলমন্ত্রী

দুর্ঘটনার স্থান থেকে যে খবর ও ছবি মিলেছে তাতে দেখা গেছে যে, দুর্ঘটনাটি ঘটার পরপরই ওই শ্রমিকদের সহায়তায় ছুটে আসেন স্থানীয় মানুষজন। পুলিশের পাশাপাশি আহতদের উদ্ধার করতে হাত লাগান তাঁরাও।আবার এর মধ্যেও দেখা যায় কিছু মানুষ দুর্ঘটনাগ্রস্ত ওই ট্রাক থেকে খাবারের প্যাকেট বের করতে ব্যস্ত। 

ওই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার খবর পেয়েই সেখানে ছুটে যান কানপুরের পুলিশ কমিশনার ও আইজি, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তাঁরা। "মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী আরাইয়ার দুর্ভাগ্যজনক ঘটনাটির কথা জানতে পেরেছেন। এই দুর্ঘটনায় যাঁরা প্রাণ হারিয়েছেন সেই পরিযায়ী শ্রমিকদের পরিবারের প্রতি তিনি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন যে, যাঁরা দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন তাঁদের সব রকম চিকিৎসা সহায়তা দেওয়া হবে", জানানো হয় প্রশাসনের তরফে। এই দুর্ঘটনার কারণ বিশ্লেষণ করে একটি বিস্তারিত রিপোর্টও জমা দিতে বলেছে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কার্যালয়।