জাতীয় লকডাউন ঘোষণার পরেই রাম মূর্তি সরাতে সদলেবলে নেমে পড়লেন স্বয়ং যোগী আদিত্যনাথ!

Yogi Adityanath in Ayodhya: শোনা যাচ্ছিল নভেল করোনা ভাইরাসজনিত COVID-19 মহামারীর কারণে অনুষ্ঠানটি পিছিয়ে যেতে পারে। তবে মুখ্যমন্ত্রী চেয়েছিলেন অনুষ্ঠান হোক। আর তাই অন্তত ২০ জন মানুষ এই অনুষ্ঠানে অংশ নিলেন।

জাতীয় লকডাউন ঘোষণার পরেই রাম মূর্তি সরাতে সদলেবলে নেমে পড়লেন স্বয়ং যোগী আদিত্যনাথ!

করোনা আতঙ্কে রামের মূর্তি স্থানান্তরের আচারে ব্যস্ত যোগী আদিত্যনাথ

হাইলাইটস

  • মন্দির তৈরি না হওয়া পর্যন্ত একটি অস্থায়ী আশ্রয়ে রাখা থাকবে মূর্তিটি।
  • বুধবার ভোরবেলা রাম জন্মভূমিতে থাকা রামের মূর্তি সরানোর আয়োজন হয়।
  • অন্তত ২০ জন মানুষ এই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন।
লখনউ:

করোনাভাইরাসকে ঠেকাতে আরও সতর্কতা বাড়াতে ২১ দিনের জাতীয় লকডাউন (21-day national lockdown) ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Prime Minister Narendra Modi)! আর এই ঘোষণার ১২ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যেই উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Uttar Pradesh Chief Minister Yogi Adityanath) সদলেবলে অযোধ্যাতে নেমে পড়লেন রামের মূর্তি স্থানান্তরের কাজে! বুধবার ভোরবেলা রাম জন্মভূমিতে (Ram Janmabhoomi) থাকা একটি টিনের শেডের তলা থেকে রামের প্রতিমা স্থানান্তরিত করার জন্য একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আপাতত ওই মূর্তি সরিয়ে ফাইবার দিয়ে তৈরি অস্থায়ী আশ্রয়ে রাখা হয়েছে। ওই স্থানে মন্দির তৈরি না হওয়া পর্যন্ত একটি অস্থায়ী আশ্রয়ে রাখা থাকবে মূর্তিটি। এই অনুষ্ঠানটিকে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের প্রথম পর্বের সূচনা বলে অভিহিত করে টুইট করেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এই মন্দির শহরে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহেই মন্দির নির্মাণের দিনক্ষণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য একটি সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তবে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আপাতত তা আদৌ হবে কিনা তা এখনও পরিষ্কার নয়।

সূত্রের খবর, শোনা যাচ্ছিল নভেল করোনা ভাইরাসজনিত COVID-19 মহামারীর কারণে অনুষ্ঠানটি পিছিয়ে যেতে পারে। তবে মুখ্যমন্ত্রী চেয়েছিলেন অনুষ্ঠান হোক। আর তাই অন্তত ২০ জন মানুষ এই অনুষ্ঠানে অংশ নিলেন। ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া নানা ছবি ও ভিডিওতে সাফ দেখা গিয়েছে শহরের বহু বিশিষ্ট সাধুদের সঙ্গে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থনা করছেন। অযোধ্যার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ প্রধানসহ উর্ধ্বতন সরকারী কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

লকডাউন চলাকালীন অনুসরণ করা নির্দেশাবলীর মধ্যেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক বলেছিল যে “জনসাধারণের জন্য সমস্ত উপাসনালয় বন্ধ থাকবে। ব্যতিক্রম ছাড়া কোনও ধর্মীয় জমায়েতের অনুমতি দেওয়া হবে না।"

প্রধানমন্ত্রী মোদি আজ সকালে টুইট করেছেন:

চিনের উহানে সামুদ্রিক খাবারের বাজারে প্রথম শনাক্ত হওয়ার পরে বেশ কয়েকটি দেশে হু হু করে ছড়িয়ে পড়ে অত্যন্ত সংক্রামক করোনভাইরাস। চিন, ইরান, ইটালির পরে যাতে ভারতেও এই ভয়ানক রোগে লাখো মানুষের মৃত্যু না হয় তাই ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা হ্রাস করার জন্য জনগণকে কোনও সমাবেশ এড়াতে অনুরোধ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

অযোধ্যা প্রশাসন ইতিমধ্যেই ২ এপ্রিল পর্যন্ত শহরে তীর্থযাত্রীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে, প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ও জরুরি পরিবহন পরিষেবা ব্যতীত সমস্ত বিমান ও ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। লকডাউন সারা দেশেই।

সুপ্রিম কোর্ট গত বছরের নভেম্বরে রায় দিয়েছিল যে অযোধ্যাতে ওই বিতর্কিত জমি পুরোপুরি দেবতা রাম লালা বা শিশু ভগবান রামের। হিন্দু এবং মুসলমান দুই সম্প্রদায়ই কয়েক দশক ধরে এই জমিটি তাদের বলে দাবি করে আসছিল। তবে শীর্ষ আদালত অবশেষে ভগবানের নামেই জমির মালিকানা ঠিক করে। ঠিক হয় বিতর্কিত জমিতে মন্দিরই হবে, তবে পাঁচ বিচারকের সংবিধান বেঞ্চ রায়ে আরও জানায় যে উত্তরপ্রদেশের এই ‘পবিত্র' শহরের একটি ‘বিশিষ্ট স্থান' নতুন মসজিদের জন্যও বরাদ্দ করা হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানান, কয়েক মাসের মধ্যেই রাম মন্দির তৈরি হবে। সুপ্রিম কোর্টের আদেশের সঙ্গে সাযুজ্য রেখে উত্তরপ্রদেশ সরকার অযোধ্যাতে মসজিদের জন্য নির্ধারিত জমির অবস্থান নির্ধারণ করে, যা ওই মন্দির-মসজিদ স্থান থেকে প্রায় ২৫ কিমি দূরে। উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী শ্রীকান্ত শর্মা ফেব্রুয়ারিতে বলেছিলেন, জমিটি জেলা সদর থেকে প্রায় ১৮ কিলোমিটার দূরে লখনউ হাইওয়েতে অযোধ্যার ধনিপুর গ্রামে অবস্থিত।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com